Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:১৫
নিউইয়র্কে অর্থমন্ত্রী
প্রবৃদ্ধি কখনো ৭% এর নিচে নামবে না
প্রতিদিন ডেস্ক

‘অর্থনীতি ব্যবস্থাপনায় দীর্ঘ অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে আমি বলতে পারি যে, এখন থেকে বাংলাদেশের বার্ষিক প্রবৃদ্ধির হার  কখনই ৭% এর নিচে নামবে না। রাজনীতিকদের মধ্যে বর্তমানে যে শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে, তা অব্যাহত রাখতে হবে বাংলাদেশের সামগ্রিক কল্যাণের স্বার্থে’— অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এ অভিমত পোষণ করেছেন নিউইয়র্কে ‘বাংলাদেশের উন্নয়ন-অভিযাত্রা এবং প্রবাসীদের ভূমিকা ও করণীয়’ শীর্ষক এক মুক্ত আলোচনায়। রবিবার রাতে নিউইয়র্ক সিটির উডসাইডে গুলশান টেরেসের মিলনায়তনে এ আলোচনার আয়োজন করে ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ বিজনেস অ্যালায়েন্স’। অর্থমন্ত্রী উল্লেখ করেন, ‘রাজনীতির নামে জ্বালাও-পোড়াওকে বাংলাদেশের মানুষ সমর্থন দেয়নি। এটি অত্যন্ত ভালো একটি উদাহরণ। একইভাবে ধর্মের নামে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সমগ্র জনগোষ্ঠী অঘোষিত একটি ঐক্য রচনা করেছে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার আহ্বানে।’ খবর এনআরবি নিউজের। তিনি বলেন, গুলশান হামলাসহ বিভিন্ন পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ নিয়ে বিভিন্ন মহলে শঙ্কা দেখা দিয়েছিল। এটি বাংলাদেশের জন্য ভয়ঙ্কর একটি অবস্থা তৈরি করেছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বে সন্ত্রাস আর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে গোটা জাতি যে ঐক্য দেখিয়েছে, যেভাবে জঙ্গি দমনে সরকার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, তার ফলে সব শঙ্কা দূর হয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে জঙ্গি দমনে বাংলাদেশিদের ঐক্যের ঘটনা এখন প্রশংসিত হচ্ছে— উল্লেখ করেন মুহিত। তিনি প্রবাসীদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘জঙ্গিবাদের কোনো ঠাঁই নেই বাংলাদেশে। সমগ্র জনগোষ্ঠী জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ-এ কথা বিদেশি বন্ধুদের জানাতে হবে।’

এ আলোচনায় আরও অংশ নেন মার্কিন কংগ্রেসে দক্ষিণ এশিয়া সম্পর্কিত কমিটির প্রভাবশালী সদস্য কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, সাবেক ব্যাংকার ড. আহমেদ আল কবীর, প্রবাসের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের নেতা সাঈদ রহমান মান্নান, ইউএস সুপ্রিমকোর্টের অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, সালেহ আহমেদ, ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, শাহনেওয়াজ প্রমুখ। কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে প্রবাসীদের অবদানের প্রশংসা করে বলেন, ‘রাজনৈতিক অস্থিরতা না থাকলে প্রবাসীরাও স্বস্তিতে থাকেন এবং আমরাও কংগ্রেসের মাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখার সুযোগ পাব।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow