Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০২:৩৪
ভূমিকম্পে করণীয় নিয়ে সচিবালয়ে মহড়া
নিজস্ব প্রতিবেদক

ভূমিকম্প সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের যৌথ উদ্যোগে গতকাল সচিবালয়ে মহড়ার আয়োজন করা হয়। রাজধানী ঢাকা থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দূরে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে ৮ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্প হয়েছে ধরে নিয়ে প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়ে এই মহড়ার মাধ্যমে ভূমিকম্প-পরবর্তী উদ্ধার অভিযান চালান ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

আগামী ১৩ অক্টোবর আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস সামনে রেখে এই মহড়ার আয়োজন করা হয়। মহড়ার অংশ হিসেবে গতকাল বেলা ১১টায় বিকট শব্দে বাজানো হয় সাইরেন। একই সময় সচিবালয়ের চারটি ভবনে একসঙ্গে আগুন জ্বলে ওঠে। সাইরেন বাজার সঙ্গে সঙ্গে ভবনের নিচতলায় অবস্থানকারীরা মাথার ওপর ব্যাগ, হাত বা শক্ত কিছু রেখে খোলা জায়গায় বেরিয়ে আসেন। বন্ধ করে দেওয়া হয় গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবরাহ। লিফটগুলো রাখা হয় ল্যান্ডিং পজিশনে। সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধারের যন্ত্রপাতি নিয়ে ছুটে আসে ফায়ার সার্ভিস। এরপর প্রায় আধঘণ্টা ধরে চলে উদ্ধার অভিযান।

মহড়ার সময় দ্বিতীয় তলা থেকে ওপরের তলাগুলোতে অবস্থানকারীরা কলাম ও বিমের সংযোগস্থল ঘেঁষে, শক্ত ও মজবুত টেবিলের নিচে বা ফার্নিচারের পাশে অবস্থান নেন। দ্রুত নিরাপদ জায়গায় অবস্থান নিতে গিয়ে আহত হয়েছেন ধরে নিয়ে কয়েকজনকে উদ্ধার করে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

শুধু তা-ই নয়, মহড়ায় ভূমিকম্পে আতঙ্কিত হয়ে অনেকেই অবস্থান নেন ভবনের ছাদে। সচিবালয়ের ৪, ৫, ৬ ও ৭ নম্বর ভবনের ছাদ এবং কয়েকটি কক্ষ থেকে এ রকম আটকে পড়াদেরও উদ্ধার করেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। উদ্ধার অভিযানে ব্যবহার করা হয় ক্রেন। একটি ভবন থেকে কয়েকজনকে রশি বেয়ে নিচে নামতে দেখা গেছে। চারতলা থেকে একজনকে নিচে নামানো হয় স্ট্রেচারে বেঁধে বিশেষ ব্যবস্থায়। ৭ নম্বর ভবন থেকে গুরুতর আহত ধরে নিয়ে এক নারীর ডামিকে রশি দিয়ে নিচে নামিয়ে আনেন উদ্ধারকর্মীরা। এক কথায় মহড়াজুড়েই ছিল ভূমিকম্প-পরবর্তী উদ্ধার প্রক্রিয়ার সব ব্যবস্থা। মহড়ার নেতৃত্ব দেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের পরিচালক (অপারেশন ও মেনটেইনেন্স) মেজর এ কে এম শাকিল নেওয়াজ। অভিযানে অংশ নেন ফায়ার সার্ভিসের ১২০ জন কর্মী, ৪০ জন স্বেচ্ছাসেবী, বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানি শাখার ১০ জন, মেডিকেলের ১০ জন, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের দুজন এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের ১৭০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী।

উদ্ধার অভিযান শেষে সংবাদ সম্মেলন করেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব শাহ কামাল। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহাম্মেদ খান মহড়া শেষে সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া ছাড়াও মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অস্থায়ী ক্যাম্পে বসে দেখেন এ মহড়া।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow