Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২১
স্বাস্থ্য প্রতিদিন
স্ট্রোকজনিত প্যারালাইসিসে করণীয়
স্ট্রোকজনিত প্যারালাইসিসে করণীয়

বিশ্বজুড়ে পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, স্ট্রোকজনিত মৃত্যুর সংখ্যা তৃতীয় এবং স্ট্রোকের কারণে স্নায়ুজনিত অক্ষমতার অবস্থান দ্বিতীয়। মেডিকেল ভাষায় স্ট্রোককে সেরেব্রো ভাস্কুলার ডিজিজ বলে।

ব্রেন বা মস্তিষ্কের স্ট্রোক সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে—

১। ইস্কেমিক স্ট্রোক— যেখানে মস্তিষ্কের মধ্যকার ধমনিগুলাতে রক্ত চলাচল কম হয়। ২। হেমরেজিক স্ট্রোক— যেখানে মস্তিষ্কের মধ্যকার ধমনিগুলো ছিঁড়ে রক্তক্ষরণ হয়। মস্তিষ্কের স্ট্রোক কেন হয়? বিভিন্ন কারণে ব্রেন বা মস্তিষ্কের স্ট্রোক হতে পারে। যেমন: অনিয়ন্ত্রিত উচ্চ রক্তচাপ, অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, হাইপারলিপিডেমিয়া বা আথেরস্কেলরসিস, অবেসিটি বা অধিক ওজন, ধূমপান, দুশ্চিন্তা, নিদ্রাহীনতা, এথেরএম্বলিজম বা কারডিওএম্বলিজম, ব্রেন টিউমার।

করণীয় : চিকিৎসার ক্ষেত্রে রোগ নির্ণয় খুবই জরুরি, কারণ ইস্কেমিক স্ট্রোক অথবা হেমরেজিক স্ট্রোক উভয়ের চিকিৎসা ভিন্ন ভিন্ন এবং সেটা একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক রোগের ধরন অনুযায়ী চিকিৎসা দিয়ে থাকেন।

ফিজিওথেরাপি চিকিৎসক রোগীকে পুনর্বাসনের জন্য একটি ট্রিটমেন্ট প্ল্যান তৈরি করে থাকেন।

পরামর্শ : রোগীকে পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়াতে হবে, ডায়বেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে, চর্বিজাতীয় খাদ্য পরিহার করতে হবে, ধূমপান ও তামাকজাতীয় দ্রব্য পরিহার করতে হবে, শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে, এছাড়া শেখানো মতো ব্যায়াম করতে হবে।

ডা. এম ইয়াছিন আলী

চেয়ারম্যান ও চিফ কনসালটেন্ট - ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল, ধানমন্ডি, ঢাকা।

up-arrow