Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৫০
সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড
দ্রুত বিচার ও তদন্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা
নিজস্ব প্রতিবেদক

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত প্রতিবেদন দ্রুত প্রকাশ ও জড়িতদের বিচার দাবিতে সমাবেশ করেছে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ)। গতকাল রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ চত্বরে হত্যাকাণ্ডের পঞ্চম বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ এ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত রিপোর্ট দ্রুত প্রকাশ ও বিচার ত্বরান্বিত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

গত পাঁচ বছরেও এ হত্যাকাণ্ডের কোনো কূলকিনারা না হওয়ায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নিহতদের স্মরণে সমাবেশের শুরুতে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সমাবেশে জাতীয় প্রেস ক্লাব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) দুই অংশ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) দুই অংশ, ডিআরইউসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। সমাবেশ থেকে ২২ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে এক যৌথ সভার আহ্বান করা হয়েছে। এ ছাড়া হত্যাকাণ্ডের দ্রুত তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ ও বিচার দাবিতে ১১ মার্চ জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সড়ক অবরোধ ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়। সমাবেশে বিএফইউজের মহাসচিব ওমর ফারুক বলেন, সারা দেশে সাংবাদিকদের ওপর নির্যাতন চলছে। ডিইউজের সভাপতি শাবান মাহমুদ বলেন, সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে খুনিদের গ্রেফতারের কথা বলে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। এখনো এ হত্যাকাণ্ডের কোনো বিচার হয়নি।

বিচারের দাবিতে আমরা আন্দোলনে সব সময় থাকব।

ডিআরইউ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা বলেন, ২২ ফেব্রুয়ারির যৌথ সভা থেকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচারসহ সারা দেশে সাংবাদিক হত্যা ও নির্যাতন বন্ধের দাবিতে যুগপৎ আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

প্রতিবাদ সমাবেশে সাগর-রুনির একমাত্র ছেলে মাহীর সরওয়ার মেঘ এবং রুনির ভাই নওশের আলম রোমান অংশ নেন। সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে রোমান বলেন, ‘আমার বোন ও ভগ্নিপতি হত্যার বিচারের আশা ছেড়ে দিয়েছি। সাগর-রুনির হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি এখন ধামাচাপা পড়ে গেছে। এ বিচার নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দায়সারা বক্তব্য দিচ্ছেন, যা আমাদের হতাশ করছে। তবে যত দিন বেঁচে থাকব তত দিন এ হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করে যাব। ’

প্রতিবাদ সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ, রুহুল আমিন গাজী, আবদুল জলিল ভূইয়া, সৈয়দ আবদাল আহমদ, ইলিয়াস খান, সোহেল হায়দার চৌধুরী, মধুসূদন মণ্ডল, কাদের গণি চৌধুরী, সরোয়ার আলম, মুরসালীন নোমানী, রেজাউল হক রাজা, সাজ্জাদ আলম খান তপু প্রমুখ।

up-arrow