Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০২:০৮
বাংলাদেশের সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি করতে চায় শ্রীলঙ্কা
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশের সঙ্গে শ্রীলঙ্কা মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) করতে চায় বলে জানিয়েছেন ঢাকা সফরে আসা দেশটির শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী রিশাদ বাথিউদ্দিন। তিনি বলেছেন, শ্রীলঙ্কার সঙ্গে চীন, ভারতসহ বেশকিছু দেশের এফটিএ আছে। বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার বাণিজ্য কার্যক্রম সম্প্রসারণে এফটিএ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তিনি দ্রুত এ চুক্তিকরণে ঢাকা চেম্বার ও শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ চেম্বারকে উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান। একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় ওষুধশিল্প খাতে বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করেন।

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) নেতাদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সভায় রিশাদ বাথিউদ্দিন এসব কথা বলেন।

গতকাল ঢাকা চেম্বারের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে দ্বিপক্ষীয় ওই বৈঠকে অংশ নেন ডিসিসিআইর সভাপতি আবুল কাসেম খান, বাংলাদেশে নিযুক্ত শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার ইয়াসোজা গুনাসেকেরা, শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি নাজিথ মুয়ানাগ, ডিসিসিআইর সহসভাপতি হোসেন এ সিকদার প্রমুখ।

শ্রীলঙ্কার শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা শ্রীলঙ্কায় ফার্মাসিউটিক্যাল, জাহাজ নির্মাণ, পর্যটন, মৎস্য আহরণ এবং অন্যান্য উৎপাদন খাতে বিনিয়োগ করতে পারেন। বাংলাদেশে উৎপাদিত ওষুধের মান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বীকৃত এবং শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশের ওষুধের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। শ্রীলঙ্কা গত বছর পাকিস্তান ও ভারতে প্রায় ৪ হাজার ৬০০ পণ্য রপ্তানি করেছে উল্লেখ করে তিনি শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশি পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে ‘সিঙ্গেল কান্ট্রি ফেয়ার’ আয়োজনের প্রস্তাব করেন।

ডিসিসিআইর সভাপতি আবুল কাসেম খান বলেন, দুই দেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণে সাফটার আওতায় বিশেষায়িত পণ্য তালিকা পুনর্মূল্যায়ন করতে হবে। দুই দেশের পণ্য পরিবহনে খরচ কমাতে চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দরের সঙ্গে কলম্বো ও ত্রিনকোমালি সমুদ্রবন্দরের সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন জরুরি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow