Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৫৫
ভাষাসৈনিক সামসুজ্জোহার মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও ভাষাসৈনিক সামসুজ্জোহার ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী গতকাল দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মাধ্যমে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। কোরআনখানি, শোক র‍্যালি, কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও জিয়ারত, দোয়া মিলাদ এবং আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করেছে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন এবং মরহুমের পরিবার।

বিকালে মাসদাইর কবরস্থান মসজিদে হয় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল। বিভিন্ন উপজেলা ও ওয়ার্ড থেকে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এবং মহাজোটের শত শত নেতা-কর্মী উপস্থিত হয়ে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন। তারা মরহুমের জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। এ ছাড়া এ কে এম সামসুজ্জোহা স্মরণে চাষাঢ়ার ঐতিহাসিক হীরা মহলে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে অংশ নেন মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ পরিবারের মহিলা সদস্যরা।

 

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মরহুমের দুই ছেলে এ কে এম সেলিম ওসমান এমপি এবং এ কে এম শামীম ওসমান এমপি, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা কমান্ড ইউনিটের কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের শ্রমিককল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর যুবলীগ সভাপতি শাহাদাত্ হোসেন সাজনু, মরহুমের নাতি অয়ন ওসমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু প্রমুখ।

এ কে এম শামসুজ্জোহা ইন্তেকাল করেন ১৯৮৭ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি। তিনি ছিলেন একাধারে ভাষাসৈনিক, আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, গণপরিষদের সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও সংসদ সদস্য। মহান মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় তাকে ২০১২ সালে স্বাধীনতা পদক (মরণোত্তর) দেওয়া হয়।

 

এই পাতার আরো খবর
up-arrow