Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৪ মার্চ, ২০১৭ ২৩:২১
রাবি শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়েছে যুবলীগ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের পলাশ, সুজন ও সাইফুল নামের তিন শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়েছে স্থানীয় যুবলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মী। প্রতিবাদ করলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে শিক্ষার্থীদের ধাওয়া করে তারা।

সোমবার রাত ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন মির্জাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর কিছুক্ষণ পর রাত ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রুবেল রানাকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকায় পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে স্থানীয় বখাটেরা। মারধরকারীদের শনাক্ত করা যায়নি। এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে গতকাল দিনভর আন্দোলনমুখর ছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

ভুক্তভোগীরা জানান, পলাশ, সুজন ও সাইফুল রাত ৯টার দিকে মির্জাপুর থেকে বিনোদপুরে আসছিলেন। এ সময় স্থানীয় যুবলীগ কার্যালয় থেকে নেশাগ্রস্ত কয়েকজন নেতা-কর্মী বের হয়। কোনো কারণ ছাড়াই তারা পলাশ ও সুজনকে বেধড়ক চড়-থাপ্পড় ও কিল-ঘুষি মারতে শুরু করে। তাদের উদ্ধার করতে আরও কয়েকজন শিক্ষার্থী সেখানে গেলে তাদের কাছ থেকে মোবাইল ও টাকা কেড়ে নিয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ধাওয়া করে যুবলীগের নেতা-কর্মীরা।

অন্যদিকে রাত ১০টার দিকে বিনোদপুর থেকে ক্যাম্পাসে ফেরার সময় রানার ওপর ধারালো অস্ত্রসহ আকস্মিকভাবে হামলা করে স্থানীয় এক যুবক। রানার মাথায় আঘাত করে মোবাইল ও টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যায় ওই যুবক। গুরুতর আহত রানা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

এদিকে এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার দাবিতে গতকাল সকাল থেকে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা। তারা সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্রভবন অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। এরপর বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে মানববন্ধন করে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow