Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:১০
ফেমবোসা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্পিকার
জনআস্থা অর্জনে চাই নির্বাচন প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন  চৌধুরী বলেছেন, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য জনআস্থা অর্জন করতে হবে। আর এজন্য নিশ্চিত করতে হবে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা। তিনি বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্র চর্চার কেন্দ্রবিন্দু জাতীয় সংসদ। তাই সংসদ নির্বাচনে জনগণের আস্থা অর্জন জরুরি। অবাধ, সুষ্ঠু ও অন্তর্ভুক্তিমূলক নির্বাচন হচ্ছে গণতন্ত্রের মূল ভিত্তি। গতকাল হোটেল র‌্যাডিসন ব্লুতে দক্ষিণ এশিয়ার নির্বাচন কমিশনের সংগঠন ‘ফোরাম অব ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট বডিস অব সাউথ (ফেমবোসা) এর দুই দিনব্যাপী সম্মেলন উদ্বোধনকালে এ তাগিদ দেন স্পিকার। অনুষ্ঠানে আফগানিস্তানের নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান ও  ফেমবোসার বর্তমান চেয়ারম্যান ড. গোলাজান এ বাদি সাইদ এবং বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বক্তব্য দেন। বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এবার সম্মেলনের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘ট্রান্সপারেন্সি ইন ইলেকটোরাল প্রসেস অ্যান্ড এনগেইজিং দ্য স্টেকহোল্ডার’। এ সংগঠনের প্রথম সম্মেলনের আয়োজক ছিল উদ্যোক্তা বাংলাদেশ। এবার নবম আয়োজন হচ্ছে ঢাকায়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ছে। এ অবস্থায় সাংবিধানিকভাবে নির্বাচন কমিশনও নির্বাচনী প্রস্তুতি এগিয়ে নিচ্ছে। শক্তিশালী গণতন্ত্র চর্চায় সংবিধান ও আরপিও অনুযায়ী অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে কমিশন দায়বদ্ধ। অনুষ্ঠানে স্বাগতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেন, সংবিধান অনুযায়ী অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এই সম্মেলনের অভিজ্ঞতা আমাদের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন করতে সহায়তা করবে। পরে স্পিকার ফেমবোসার অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর প্রথম সাধারণ অধিবেশনে  ফেমবোসার বর্তমান সভাপ্রধান আফগানিস্তানের প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. গোলাজান এ বাদি সাইদ স্বাগতিক বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার কাছে সভাপ্রধানের দায়িত্ব হস্তান্তর করেন। এ সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন শ্রীলঙ্কার নির্বাচন কমিশন চেয়ারম্যান মাহিন্দ্রা  দেশাপ্রিয়া, নেপালের প্রধান নির্বাচন কমিশনার ডা. আইয়োদি প্রাসাদ জাদেভ, ভারতের নির্বাচন কমিশনার অশোক লাভাসা, ভুটানের নির্বাচন কমিশন সচিব দাউয়া তানজিন, মালদ্বীপের রাষ্ট্রদূত এশাথ শান শাকির, পাকিস্তানের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার শাহ ফয়সাল কাকারসহ বাংলাদেশের দুই সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এটিএম শামসুল হুদা ও বিচারপতি আবদুর রউফ, নির্বাচন কমিশনারবৃন্দ ও ইসি সচিব এবং দেশি-বিদেশি প্রতিনিধিরা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow