Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:২৪
গ্রাম পুলিশের জন্য কেনা হচ্ছে ৩০ হাজার শটগান
নিজস্ব প্রতিবেদক
bd-pratidin

বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর (গ্রাম পুলিশ) জন্য ৩০ হাজার ১২-বোর শটগান এবং শটগানের জন্য ৩০ লাখ কার্তুজ আমদানি করছে সরকার। এজন্য ব্যয় হবে ১৪৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। এসব শটগান ও কার্তুজ ইতালি, তুরস্ক ও যুক্তরাজ্য থেকে সংগ্রহ করে সরকারকে সরবরাহ করবে বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি। গতকাল সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বৈঠকে শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, বিভিন্ন সময় আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর জন্য এসব অস্ত্র কেনা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এবারও কেনা হচ্ছে। অতিরিক্ত সচিব বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানির দুটি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। কোটেশন ইনকুয়েরির মাধ্যমে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ সার সরবরাহ করবে মেসার্স আরএস লিমিটেড সিঙ্গাপুর। প্রতি টনের দাম ৩০৪ দশমিক ৪১ মার্কিন ডলার হিসেবে ২৫ টন প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানিতে বাংলাদেশি টাকা খরচ হবে ৭২ কোটি ৫২ লাখ। এ ছাড়া আরও একটি ক্রয় প্রস্তাবের মাধ্যমে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এসব সার সরবরাহ করবে মেসার্স হাইড্রোকার্বন ঢাকা। সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে এ সার আমদানি করা হবে। ২৫ টন প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানিতে খরচ হবে বাংলাদেশি টাকা ৬৭ কোটি ৫০ লাখ। এ ছাড়া ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে কাতার থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির ভূতাপেক্ষ (আমদানি করা হয়ে গেছে) অনুমোদন দিয়েছে বলে জানান মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, প্রতি টনের দাম ২৮৪ দশমিক ৭৫ মার্কিন ডলার হিসেবে ২৫ টন প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানিতে খরচ হবে ৫৯ কোটি ৬১ লাখ টাকা। এ সার আমদানি হয়ে গেছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের একটি প্রকল্পের আওতায় ৪১৯ কোটি ৮৪ লাখ টাকা ব্যয়ে দুই লাখ ৪ হাজার ৯৯০টি খুঁটি কেনার প্রস্তাব অনুমোদন করে ক্রয় কমিটি।

কনটেক কনস্ট্রাকশন লিমিটেড ১০৬ কোটি ৪৪ লাখ টাকায়, পোলস অ্যান্ড কংক্রিট লিমিটেড ১০৬ কোটি ৪০ লাখ টাকায়, ক্যাসেল কনস্ট্রাকশন কোম্পানি ১০৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকায় এবং বাংলাদেশ মেশিনারিজ ফ্যাক্টরি ১০০ কোটি ৬৩ লাখ টাকায় চারটি লটে এসব খুঁটি সরবরাহ করবে বলে জানান তিনি। এ ছাড়াও কমিটি গতকালের বৈঠকে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের আরও ৮টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন করে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow