Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০২:৫৬
মানববন্ধনে বক্তারা
শিশুরা যেন যৌন দাসত্বের শিকার না হয়
নিজস্ব প্রতিবেদক

মেয়ে শিশুদের পাশাপাশি ছেলে শিশুরাও অপরাধীদের হাতে বন্দী হয়ে যৌন দাসত্বের শিকার হয়। অথচ অনেকে ভাবেন কেবলমাত্র মেয়ে শিশুরাই পাচারের শিকার হয়। এ ধারণা ভুল। শিশুরা যেন যৌন দাসত্বের শিকার না হয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এসব কথা বলেন বক্তারা। শিশু পাচার প্রতিরোধে কমিউনিটি ও নেটওয়ার্কিং শক্তিশালীকরণে প্রিভেনশন অব চাইল্ড ট্রাফিকিং থ্রো স্ট্রেন্থেনিং কমিউনিটি অ্যান্ড নেটওয়ার্কিং (পিসিটিএসসিএন) এবং অ্যাসটেক বাংলাদেশ ‘বিশ্ব শিশু দিবসের অঙ্গীকার, সম্মিলিতভাবে রুখব শিশু পাচার’ শীর্ষক এ কর্মসূচির আয়োজন করে। বক্তারা বলেন, আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা পালন করতে হবে। এর মধ্যে কোনো শিশুকে পাচারের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ মনে হলে তার সুরক্ষার উদ্যোগ, উদ্ধারকৃত শিশুর আইনগত সহায়তা, আশ্রয় এবং পারিবারিক বা সামাজিক প্রতিষ্ঠা সহায়তার ব্যবস্থা করা আমাদের দায়িত্ব। তারা বলেন, শিশুরা বিভিন্ন ধরনের জোরপূর্বক শ্রম ও বাধ্যতামূলক ও শোষণমূলক শ্রমের উদ্দেশে পাচারের শিকার হয়ে থাকে। সঠিক পরিবেশ ও স্নেহ দেওয়ার কথা বলে শিশুদের নিয়োগ করে তাদের কোনো ধরনের শিক্ষা ও স্নেহ না দিয়ে, অত্যাচার ও দীর্ঘ সময় বিনা বা স্বল্প মজুরিতে কাজ করানো, জোরপূর্বক ভিক্ষাবৃত্তি, ছেলে-মেয়ে উভয়েরই অঙ্গ পাচার, যৌন শোষণ ইত্যাদির শিকার হয় শিশুরা। মানববন্ধনে ইনসিডিন বাংলাদেশ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল ইসলাম খান, পিসিটিএসসিএন-এর প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর শারিফুল্লাহ রিয়াজ এবং সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) পক্ষে মো. জাহিদ হাসানসহ অন্যরা বক্তব্য দেন।

 

এই পাতার আরো খবর
up-arrow