Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৯ জুন, ২০১৮ ১৩:৫১ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৯ জুন, ২০১৮ ১৭:৫৩
দর্শকদের মনযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে চাই না
শবনম ইয়াসমিন বুবলী
দর্শকদের মনযোগে ব্যাঘাত ঘটাতে চাই না

এবারের ঈদে আমার দুটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। এর মধ্যে 'সুপার হিরো' দেখেছি মধুমিতায় আর চম্পাকলিতে 'চিটাগাইঙ্গা পোয়া, নোয়াখাইল্যা মাইয়া'। হলে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ছবি দেখাও  প্রচারণার একটা অংশ। দর্শকরা যখন হলে ছবি দেখছে তখন শিল্পীদের সেখানে যাওয়া- এই বিষয়টাকে আমি সম্মান করি। তবে আমার দৃষ্টিভঙ্গি একটু ভিন্ন। 

দর্শক যখন হলে ছবি দেখে তখন তাদের মনোযোগটা থাকে ছবির দিকে। ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, শিল্পীরা যদি হলে গিয়ে হাজির হই তখন দর্শকদের মনোযোগ একটু হলেও সরে যায় ছবি থেকে। আমি চাই দর্শকরা শতভাগ মনোযোগ দিয়ে ছবিগুলো দেখুক। তাদের জন্যই তো আমাদের কাজ। এটা তাদের সঙ্গে আমাদের বড় একটা যোগাযোগ যে তাদের জন্য কাজ করছি। তাই আমি বোরকা পরেই ছবিগুলো দেখেছি। আমার মনে হয়েছে ছবিগুলো বড় স্ক্রিনে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শিল্পীদের দেখা উচিত। ছবিটা কেমন হয়েছে, দর্শকদের প্রতিক্রিয়া কেমন, আমি কেমন করলাম, অন্যান্য শিল্পীরা কেমন করেছেন-এসব জানতে পারা, সবকিছু মিলিয়ে অন্যরকম একটা স্বাদ পাওয়া যায়।

এবার মুক্তি পাওয়া ছবি দুটি থেকেই ভালো সাড়া পাচ্ছি। আশা করছি, সামনে আরও ভালো সাড়া পাব। বিশ্বকাপ ফুটবল খেলার মধ্যেও দর্শকরা হলে যাচ্ছে। এটা আমাদের চলচ্চিত্রের জন্য ইতিবাচক। এটা আসলেই অনেক বড় একটা ব্যাপার।

ছবিগুলো লোকাল হলে যখন দেখি তখন অন্যরকম উন্মাদনা টের পাই। বিভিন্ন সংলাপে দর্শক সিটি মারছে, চিৎকার করছে, গানগুলোর সময় নাচছে- এগুলো খুব উপভোগ করি। এবার হলে গিয়ে খুব ভালো লেগেছে। মনে হয়েছে তখন আমি নিজেও পুরোপুরি দর্শক হয়ে যাই। সাধারণ দর্শকদের ওই উন্মাদনাটা আমার মধ্যেও কাজ করে। দর্শকদের প্রতিক্রিয়াটা স্পষ্টভাবে দেখা যায়। তারা আসলে কী পছন্দ করে সেটাও বোঝা যায়।

আমি সময় করে আবারও সিনেমা হলে যাব।এবার ঈদে মুক্তি পাওয়া সব ছবি দেখার ইচ্ছে আছে। তবে শুধু ঈদে নয়, মুক্তিপ্রাপ্ত সব বাংলা সিনেমাই আমাদের দেখা উচিত। ভিন্ন ভিন্ন চলচ্চিত্র থেকে ভিন্ন ভিন্ন অভিজ্ঞতা পাওয়া যায়। যত ছবি দেখব ততই আমাদের জন্য ভাল। দর্শকরা যত বেশি সিনেমা দেখবে প্রযোজকরাও তত বেশি লগ্নি করবে। এটি চলচ্চিত্রের জন্যই ইতিবাচক।

বিডি প্রতিদিন/১৯ জুন ২০১৮/আরাফাত

আপনার মন্তব্য

up-arrow