Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫৪
টরন্টোতে শিল্পী নুরুল আলম লালের গজলসন্ধ্যা
অনলাইন ডেস্ক
টরন্টোতে শিল্পী নুরুল আলম লালের গজলসন্ধ্যা

টরন্টোর সঙ্গীতাঙ্গনে 'ওস্তাদ শিল্পী' হিসেবে পরিচিত নুরুল আলম লালের একক গজল নিয়ে হয়ে গেল বিশেষ অনুষ্ঠান 'নিশি না যেও না..'। সম্প্রতি বাঙালী অধ্যুষিত ডেনফোর্থের মিজান কমপ্লেক্স অডিটরিয়ামে এ গজলসন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়।

সাধারণত, প্রবাসের সাংস্কৃতিক আয়োজনগুলো হয় বিকেল থেকে রাত অবধি। কিন্তু শিল্পী নুরুল আলম লালকে নিয়ে গজলের আয়োজনটি ছিলো রাত থেকে। রাত ১০টা থেকে টানা ২টা পর্যন্ত চলে সুরের পরিবেশনা। টরেন্টোর নাট্যসংগঠন অন্য থিয়েটারের আয়োজনটি 'গজল সন্ধ্যা' হলেও অনুষ্ঠানের শুরুতে সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের প্রতি শদ্ধা জানাতে তার লেখা, হায়রে মানুষ রঙীন মানুষ’ এবং ‘অনেক সাধের ময়না আমার' গান দু'টি পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করেন তিনি। এরপর তিনি একের পর এক গজল পরিবেশন করেন।

উত্তর আমেরিকায় খ্যাতিমান শিল্পী নুরুল আলম লাল আধুনিক গানেও জনপ্রিয়। ফলে গজল সন্ধ্যায়ও শ্রোতাদের অনুরোধে তিনি পরিবেশন করেন  আধুনিক গান। টানা গানের পরিবেশনায় শ্রোতাদের মন্ত্রমুগ্ধের মতো আটকে রাখেন রাত ২টা অবধি।

প্রসঙ্গত, শিল্পী নুরুল আলম লালের জন্ম বগুড়ায়। বগুড়ার ওস্তাদ দেলোয়ার হোসেনের কাছে সঙ্গীতের হাতেখড়ি। তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র থাকাকালেই তিনি প্রথম মঞ্চে গান গেয়ে শ্রোতাদের মনোযোগ কেড়ে নেন। পরবর্তীতে শিবেন কুন্ডুর কাছে গান শেখেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সূচনালগ্নে গানে গানে স্বাধীনতার ডাক ছড়িয়ে দেওয়ায় সক্রিয় অংশ নেন নুরুল আলম লাল ও তার স্ত্রী তামান্না আলম। ১৯৮৮ সালে তিনি দেশ ছেড়ে নিউইয়র্কে বসতি গাড়েন। সেখানে ভীমসেন যোশির কাছে  ক্লাসিক্যাল সঙ্গীত শেখেন। তার ছেলে সজীব ও রাজীব। সজীব ঢাকার খ্যাতনামা কণ্ঠশিল্পী আর রাজিব উত্তর আমেরিকায় জনপ্রিয় তবলা শিল্পী। উল্লেখ্য, নুরুল আলম লালের এই গজল সন্ধ্যায় তবলায় সহযোগিতা করেন রাজিব।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow