Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ মার্চ, ২০১৭ ২২:০৮
‘দ্য রিকশাওয়ালা’ যে ছবিটি নির্মিত হলে অস্কার পেতে পারত
‘‘ নায়ক চিৎকার করে বলে, চৌধুরী সাহেব আপনার অনেক টাকা থাকতে পারে কিন্তু মনে রাখবেন আমি সিনেমার নায়ক...
‘দ্য রিকশাওয়ালা’ যে ছবিটি নির্মিত হলে অস্কার পেতে পারত

পরিচালক : সোহানুর রহমান অনন্ত

কাহিনী পুরোপুরি : নায়ক ছোটবেলা গলির মাথা থেকে দৌড় না মেরে ঢাকার লোকাল বাসে উঠল। জ্যামে বসে থাকতে থাকতে সে বড় হয়ে বাস থেকে নামল।

গুলিস্তানে হকারের সঙ্গে গুঁতা খেয়ে সে একটা মেয়ের ওপর গিয়ে পড়ল। মেয়েটার হাত থেকে ফলের ব্যাগটা পড়ে গেল। হঠাৎ ধাক্কা খাওয়ায় দুজনের প্রেম হয়ে গেল। কিন্তু নায়িকার বাবা চৌধুরী সাহেব, কাওরান বাজারের কাঁচা তরকারি ব্যবসা করেন। মেয়ের ভাই সদরঘাটের চোরা মার্কেটের মস্তান। তারা কোনোভাবেই নায়িকাকে বেকার নায়কের হাতে তুলে দেবে না। নায়ক চিৎকার করে বলে, চৌধুরী সাহেব! আপনার অনেক টাকা থাকতে পারে কিন্তু মনে রাখবেন আমি সিনেমার নায়ক! আপনার মেয়েকে বিয়ে করে, প্রমাণ করে দেব, আমি আপনার মেয়েকে সত্যি ভালোবাসি।

নায়ক নিজের পায়ে দাঁড়াতে রাস্তায়  সেদ্ধ ডিম বিক্রি শুরু করল। কিন্তু নায়িকার বাবা আর ভাই মিলে ষড়যন্ত্র করে। তারা মলম পার্টি লাগিয়ে নায়কের চোখে মলম মেরে তার সব টাকা নিয়ে গেল। নিঃস্ব নায়ক সব হারানোর বেদনায় বিড়ি টানতে টানতে রাতের বেলা বাড়ি ফিরছিল। এমন সময় মহল্লার পাগলা কুকুরটা নায়ককে দৌড়ানি দেয়। নায়ক দৌড়ে একটা রিকশা গ্যারেজে গিয়ে আত্মরক্ষা করে। গ্যারেজের মালিক তার সব কথা শুনে নায়ককে একটা রিকশা দিয়ে বলে, যা বাবা কোটিপতি হয়ে নায়িকাকে বিয়ের করে সিনেমাটা শেষ কর। নায়ক রিকশা নিয়ে রাস্তায় বের হলো। সেদিন পরিবহন ধর্মঘট চলছিল। এবং এক দিনে সে কোটিপতি হয়ে, চৌধুরী সাহেবের মেয়েকে বিয়ে করে, সুখে সংসার করতে লাগল।

সিনেমা শেষ। তালি দেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow