Bangladesh Pratidin

আনন্দ বাড়ি নেই

বিকেলের গায়ে রং লাগেনি তখনো পাকা সিঁদুরে আমের মতো খুব গাঢ় দুপুরটা ঢলে পড়ছে একটুখানি জানালায় মেয়েটি ভীষণ ছুটে যায় তার নির্বাচিত তীব্র ফর্সা আনন্দের কাছে; বোকা মেয়ে জানে না আনন্দ বাড়ি নেই কতোকাল, স্বপ্ন জয়ের আসক্তি জীবনকে ঘরছাড়া করে মনে থাকে না শিমুল ফুলে গন্ধ নেই শুধু রং আছে লাবণ্যের ব্যবচ্ছেদ নেই কোনো দীর্ঘ…

মৃত সভ্যতার ঝিঁঝিঁ ডাক

নদীজলে পুষ্ট হই               ও যমুনা! কোন্ অববাহিকায় তোমারই জল! কৃষিজীবী আমি— মাটির আস্তর দেওয়া বাড়িতে থাকি                          মৃৎপাত্রে ভাত। ধানের সাথেই গম-যব চাষ করি সরিষার ক্ষেতের সৌন্দর্যে—           মৌমাছি ভনভন করতে থাকে; নানা ধরনের ডাল…

আমার ভাষা

তথাপি এই যে হাবা ধুলাদের পাড়ায় আমি কানিবকের চোখ কচলে জেগে উঠি, রোজ, তোমরা দেখো-কি যারা ছেড়ে গেছো ভূ-বাড়ি?   যারা ভুলে গেছো রসুন বোনা ভোর, হরিয়ালের কথারোদ! আমি, আমি-তো আজ ভোরেও পান্তা খেতে খেতে মাকে বলেছি, মা, মা-গো মা, দেখছোনি, এই পুরানা লাঙলের শিস কেমন বোঝে পরানের ভাষাখানি!   এবং আর আমার খেতে, মাটির ঢেলাগুলি নাকি…
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow