Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৮ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ জুন, ২০১৬ ০০:২৯
কমেডিয়ান থেকে রাজনীতিবিদ
রাজনীতিবিদদের উত্থান নিয়ে গবেষণা করতে গেলে অনেক সময় বিস্মিত না হয়ে উপায় থাকে না। তাদের মধ্যে অনেকেই জীবনের বিচিত্র সব অধ্যায় পার করে উঠে আসেন রাজনীতির শীর্ষপদে। হিসাব কষলে অতীতের সঙ্গে বর্তমানের কোনো মিল নেই। ভাবতেও অবাক লাগে নেহাতই কমেডিয়ান থেকে দেশের ক্ষমতাধর রাজনীতিবিদ, এমনকি রাষ্ট্রপতিও হয়েছেন অনেকে। এমন কয়েকজন কমেডিয়ান ব্যক্তিত্বকে নিয়ে আজকের আয়োজন।
কমেডিয়ান থেকে রাজনীতিবিদ

জ্যাকব হগার্ড

১৯৯৪ সালে ডেনমার্কের পার্লামেন্ট সদস্য হয়ে নিজের স্থান করে নেন এই টিভি কমেডিয়ান। তার প্রথম প্রতিশ্রুতি ছিল, পরিবেশ-প্রকৃতি-জলবায়ুর উন্নয়ন করবেন এবং সেনাবাহিনীর রেশনে নিউটেলা (চকলেট জাতীয় খাবার) জুড়ে দেবেন।

ব্যস, তাতেই কেল্লা ফতে! বনে যান পার্লামেন্ট সদস্য।

 

বপ্পে গ্রিল্লো

তার সুখ্যাতি একদিকে নয়; তিনি রাজনীতিবিদ এবং কমেডিয়ান তারকা হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয়। ইতালিয়ান এ কমেডিয়ান আলোচিত ‘ফাইভ স্টার মুভমেন্ট’-এর প্রবক্তা, তার হতে ধরেই ২০১৩ সালে ইতালির দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক দলের দেখা যায়। বয়স বাড়লেও হাস্যরসের চর্চায় এখনো সেই আগের মতোই তরুণ।

 

জন নার

আইসল্যান্ডের রেকিয়াভিক শহরের মেয়র জন নার। হাস্যরসে মন মাতানো মানুষটি টিভি অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করতেন। নিতান্তই মজার ছলে এক টিভি অনুষ্ঠানে তিনি একটি রাজনৈতিক দলের ঘোষণা করেন। ২০১০ সালে তার প্রতিশ্রুতি ছিল, পাবলিক সুইমিংপুলে সবাইকে বিনা পয়সায় তোয়ালে দেবেন তিনি!

 

অ্যাল ফ্র্যাঙ্কেন

তিনিও টিভি কমেডিয়ান, উপস্থাপনা করতেন ‘স্যাটারডে নাইট লাইভ’ অনুষ্ঠান। হাস্যরসে মাতিয়ে তুলতেন গোটা গ্যালারি। তবে ২০০৯ সালে মিনেসোটার ডেমোক্রেটিক সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর এই পূর্ব পরিচয়ের কারণে বেশ ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে বটে তাকে! তবুও তিনি একজন সফল রাজনীতিবিদ।

 

ভগবন্ত মন

ভারতের কমেডিয়ানের নাম আসলে ভগবন্ত-এর নাম আসবেই। ২০১৪ সালে ভারতের পার্লামেন্টে নিজের স্থান দখল করে নেন এই তারকা। নির্বাচিত হওয়ার আগে ‘হবু প্রধানমন্ত্রী’ নরেন্দ্র মোদিকে নিয়েও বেজায় ঠাট্টা করেছিলেন তিনি!

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow