Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:৫৭
গিনেস রেকর্ডস
গিনেস রেকর্ডস

পৃথিবীর সবচেয়ে অদ্ভুত এবং আলোচিত বিষয়গুলোর গুদামঘর বলা যায় গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডকে। এটি মূলত একটি বার্ষিক প্রকাশনা।

বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিশ্ব রেকর্ড নথিভুক্ত করার জন্য প্রতি বছর গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে প্রায় ৫০ হাজার আবেদন আসে। সেখান থেকে গড়ে মনোনয়ন পায় ছয় হাজারটি। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের অফিশিয়াল সাইট ঘেঁটে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন— মাহবুবুল আলম

 

>> নাচে রোবটের বিশ্ব রেকর্ড

রোবট পারে না কি? খেলা করতে পারে, গান গাইতে পারে, নির্মাণ শিল্প কিংবা হাসপাতালে কাজও করতে পারে। এমনকি রেস্টুরেন্টে খাবার পরিবেশনেও  রোবটকে কাজে লাগানো হয়। আর এবার বিশ্ব রেকর্ড গড়ার জন্য নাচলো এক দল রোবট। অবিশ্বাস্য হলেও গত ৩ আগস্ট এমনটি ঘটেছে চীনের সাংদংয়ের কিংদাও বিয়ার উৎসবে। সেখানে বাদ্যের তালে তালে একদল রোবট নেচেছে বিশ্ব রেকর্ড ভাঙার জন্য। উচ্চতায় দেড় ফুটের কাছাকাছি বা ৪৩.৮ সেন্টিমিটার, আর সংখ্যায় ১০০৭টি এই রোবটেরা এক মিনিট ধরে নেচে সম্প্রতি ভেঙেছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড। একটি মোবাইল ফোনের নির্দেশনায় এক মিনিট ধরে তারা নির্ভুলভাবে নেচেছে। তবে, আয়োজকরা যত রোবট নিয়ে এসেছিলেন, তাদের সবাই কাজটি ঠিকঠাক শেষ করতে পারেনি। নাচার সময় এদের কয়েকজন মাটিতে পড়ে গিয়েছিল। আর কয়েকজন যথা সময়ে শেষ করতে পারেনি কাজ। ফলে প্রতিযোগিতায় তাদের অযোগ্য ঘোষণা করা হয়। তবে ১০০৭টি রোবট ঠিক সময়ে কাজটি শেষ করতে  পেরেছিল। আগের রেকর্ডটিও চীনের। চলতি বছরের এপ্রিলে চীনের সেনজেনের সিসিটিভি স্প্রিং ফেস্টিভালে। তবে সংখ্যায় বর্তমান তারা ছিল নতুন রেকর্ডের অর্ধেক। মাত্র ৫৪০টি রোবট।

 

>> বেলুন ফাটিয়ে কুকুরের বিশ্ব রেকর্ড

একেবারে ‘মা কা বেটি’ যেন। এক সময় দ্রুত বেলুন ফাটানোর বিশ্ব রেকর্ড ছিল তার মা আনাস্তাসিয়ার দখলে। তাও টানা ৭ বছর। কিন্তু ২০১৫ সালে কেরি নামে ব্রিটেনের একটি কুকুর ৪১.৬৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে মায়ের রেকর্ডটি ভেঙে দেয়। আর এবার মাত্র ৩৯.০৮ সেকেন্ডে একনাগাড়ে ১০০টি বেলুন ফাটিয়েছে রেকর্ডটি নিজের করে নিলো মেয়ে টুইঙ্কি! অর্থাৎ প্রতি সেকেন্ডে আড়াইটার মতো বেলুন ফাটিয়েছে এটি। টুইঙ্কি আসলে একটি জ্যাক রাসেল টেরিয়ার প্রজাতির কুকুর। এই প্রজাতির কুকুর আকারেও খুব একটা বড় হয় না। তাই ছবিতে টুইঙ্কিকে দেখে অনেকেই বিড়াল কিংবা কুকুরছানা মনে করতে পারেন। টুইঙ্কিলের মনিব ডরি সিটারলি ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা। পেশায় তিনি একজন কুকুর প্রশিক্ষক। ডরি জানান, টুইঙ্কির মা আনাস্তাসিয়া ২০০৫ ও ২০০৮ সালে এই রেকর্ডটি গড়েছিলেন। তবে, ২০১৫ সালে সেটা কেরি ভেঙে দেন। আর এবার টুইঙ্কি মায়ের রেকর্ড পুনরুদ্ধার করল।

 

>> বুক ডন দিয়ে বিশ্ব রেকর্ড

বুক ডন (পুশ আপ) দিয়ে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়লেন রোটেশ চৌধুরী নামের ভারতীয় এক যুবক। এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি ৫১ বার বুক ডন দিয়েছেন তিনি। তাও আবার পিঠে ৬০ পাউন্ড ওজনের সমপরিমাণ ১৫টি ইট নিয়ে। ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের ফরিদাবাদের বাসিন্দা রোটিশ চলতি বছর আন্তর্জাতিক যোগব্যায়াম দিবসে লাখো মানুষের সামনে এই কেরামতি দেখান। আশ্চর্যের বিষয় হলো ৩০ বছর বয়সী রোটিশ রেকর্ড গড়ার জন্য কোনো পেশাগত প্রশিক্ষণ নেননি। তবে নিয়ম করে ৬ মাস প্রতিদিন ৬ ঘণ্টা কঠোর অনুশীলন করেছেন। রেকর্ড গড়ার পর এক সাক্ষাৎকারের রোটিশ ভবিষ্যতে আরও অনেক ফিটনেস রেকর্ড ভাঙার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পিঠের ওপর ৮০ ফাউন্ড বোঝার আগের রেকর্ডটি ছিল পান্ডি দোয়েলের। তবে সেটা রোটিশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে। যুক্তরাজ্যের নাগরিক পান্ডি ২০১১ সালে এক মিনিটে ৩৮ বার বুক ডন দিতে সক্ষম হন। আর এতে উঠে আসেন সেরার তালিকায়।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow