Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:১৭
ইনফো টিপস
ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ান
ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ান

ইন্টারনেটের স্পিড কমে গেলে বিড়ম্বনার শেষ নেই। মাঝে মাঝে স্পিড এতটাই স্লো হয়ে যায় যে, তখন ধৈর্য হারিয়ে যা খুশি করে ফেলতে ইচ্ছা করে।

রইল ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ানোর উপায়।

 

তথ্য-প্রযুক্তির এই যুগে ইন্টারনেট ছাড়া চিন্তাই করা যায় না। কম্পিউটার, ল্যাপটপ কিংবা মোবাইল যাই হোক না কেন ইন্টারনেট ছাড়া যেন টেকা দায়। কম্পিউটারে কাজ করছেন কিন্তু হঠাৎ করেই নেটের স্পিড কমে গেলে বিড়ম্বনার কমতি থাকে না। ঠিক সে সময় ইন্টারনেট সংযোগে স্পিড কত পাচ্ছেন তা নিয়ে ব্যাপক সংশয় কাজ করে। তখন পরীক্ষা করে দেখতে চান আপনার ইন্টারনেটের সত্যিকারের গতি।

 

এক্ষেত্রে শুরুতেই যাচাই করেই দেখুন কেন আপনার কম্পিউটার, মোবাইল কিংবা রাউটারে স্পিড কমে যাচ্ছে। খুব বেশি কঠিন নয়, এ জন্য www.speedtest.net ঠিকানায় যেতে হবে। স্পিড টেস্ট ওয়েবসাইটে গিয়ে ‘বিগিন টেস্ট’ ট্যাবে ক্লিক করুন। তখন ইন্টারনেট থেকে ছোট্ট একটি ফাইল ডাউনলোড শুরু হয়ে যাবে। ফাইলটি ডাউনলোড হলেই তাতে আপনার ইন্টারনেটের স্পিড শো করবে। এরপর ওই একই ফাইল সক্রিয়ভাবে আপলোড শুরু হবে। সেখান থেকেই মিলবে আপলোড স্পিড।

 

ইন্টারনেটের স্পিড কমে যাওয়ার থেকে খারাপ হয়তো আর কিছুই হয় না। বিশেষত কাজের সময়, যখন আপনার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ কোনো কাজ শেষ করার তাড়া থাকে আর ঠিক সেই মুহূর্তেই ইন্টারনেট কানেকশন স্লো থাকলে সত্যিই ধৈর্য থাকে না। এমন অবস্থায় কী করবেন? জেনে নিন কিছু উপায়।

বর্তমানে ইন্টারনেটের গতি পরীক্ষা করার জন্য অনেক অ্যাপ বা সফটওয়্যার রয়েছে। যেমন স্পিড টেস্ট ব্যবহার করে দেখে নিতে পারেন ইন্টারনেটের বর্তমান গতি। গতি অনেকটা নির্ভর করে ব্যবহার, পিক আওয়ার, নেটওয়ার্ক এবং কী ধরনের সংযোগ (ডেটা প্ল্যান) তার ওপর। এতে গতি বাড়বে। টুজি নেটওয়ার্কের পরিবর্তে থ্রিজি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করুন।

 

ওয়াইফাই বা মোবাইল নেটওয়ার্ক, যেটাই ব্যবহার করেন না কেন শুরুতেই ভালো করে দেখে নিন সিগন্যাল ঠিকমতো পাচ্ছে কি না। অনেক সময় এমনও হতে পারে যে, আপনি যে ইন্টারনেট প্ল্যানের পরিষেবা নিচ্ছেন, তার স্পিড কম। সেক্ষেত্রে ইন্টারনেট প্যাক বদলান। আপনার হার্ডওয়্যারের ট্রাবলশুট করান। ইন্টারনেটের স্পিড স্লো হয়ে গেলে পরিষেবা প্রদানকারীকে দোষ না দিয়ে আপনার কম্পিউটার কিংবা ওয়াইফাই রাউটারটি একবার রিসিট করান। এতে সাময়িক সমাধান হবে। যারা ওয়াইফাই ব্যবহারে ইন্টারনেট এবং রাউটার ঠিক থাকা সত্ত্বেও সিগন্যাল দুর্বল। সেক্ষেত্রে আপনার রাউটারটি পুনরায় রি-পোজিশন এবং বুট করান।

এ ছাড়া আপনার ফোনের মেমোরি ও ক্যাশ মেমোরি পরিষ্কার করেও মোবাইল ইন্টারনেটের গতি বাড়াতে পারেন। ফোনের মেমোরির পরিবর্তে এসডি কার্ড বা অনলাইনে ড্রপবক্স, গুগল ড্রাইভের মতো সেবা ব্যবহার করতে পারেন। মোবাইলের ক্যাশ মেমোরি ফুল হয়ে গেলে স্পিড কমে যায়। আপনার স্মার্টফোনের অব্যবহূত অ্যাপ কমিয়ে ফেলুন। এসব অ্যাপ ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর প্রভাব ফেলে। আপনার ফোনের নেটওয়ার্ক সেটিংস ঠিক আছে কি না যাচাই করে নিন। এটি শুধু টুজি বা থ্রিজির নেটওয়ার্কের সঙ্গে সীমাবদ্ধ নয়। অনেক মোবাইলে নেটওয়ার্ক স্বয়ংক্রিয়ভাবে GSM/WCDMA/LTE নির্ধারিত হয়। যদি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্ধারণ না হয় তাহলে ম্যানুয়ালি নেটওয়ার্ক ক্লিক করে নিন। যদি থ্রিজি ব্যবহারকারী হন তাহলে নেটওয়ার্ক টাইপ WCDMA বা 3G রাখুন। ভালো গতির জন্য ফাস্ট ওয়েব ব্রাউজার যেমন : অপেরা মিনি, ইউসি বা ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করতে পারেন এবং নিয়মিত আপডেট করিয়ে নিন। আপনার ফোনের ইন্টারনেটের গতি বাড়ানোর জন্য ইন্টারনেট বুস্টার অ্যান্ড অপটিমাইজার, ফাস্টার ইন্টারনেট ২ এক্স, ইন্টারনেট স্পিড বুস্টার ইত্যাদি অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। কোনো এক্সপার্টের সাহায্য ছাড়াই নিজে ইন্টারনেটের স্পিড বাড়াতে পারবেন।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow