Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:১৫
গিনেস রেকর্ডস
গিনেস রেকর্ডস

পৃথিবীর সবচেয়ে অদ্ভুত এবং আলোচিত বিষয়গুলোর গুদামঘর বলা যায় গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসকে। এটি মূলত একটি বার্ষিক প্রকাশনা। বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিশ্বরেকর্ড নথিভুক্ত করার জন্য প্রতি বছর গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে প্রায় ৫০ হাজার আবেদন আসে। গড়ে সেখান থেকে মনোনয়ন পায় ৬ হাজারটি। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের অফিশিয়াল সাইট ঘেঁটে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন— মাহবুবুল আলম

 

কুকুর ছাগল থেকে এগিয়ে বিড়াল

গৃহে পালন করা হয় এমন সব প্রাণীর মধ্যে কুকুর, বিড়াল ও ছাগল সবার কাছে খুবই পরিচিত। তবে আকার আকৃতিগত দিক থেকে যেমন তাদের মধ্যে ভিন্নতা রয়েছে, তেমনি তাদের সক্ষমতায়ও বিশেষ করে দৌড় কিংবা লাফে ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়। এক্ষেত্রে উচ্চ লাফে অনেকটা এগিয়ে অ্যালি নামের এক আমেরিকান বিড়াল। সর্বোচ্চ  ১৮২.৮৮ সেন্টিমিটার লাফিয়ে উঠতে পারে এটি। বিড়ালের পরই আছে সিন্ডারেলা মে এ হোলি গ্রে নামে একটি কুকুর। ১৭২.৭ সেন্টিমিটার বা ৬৮ ইঞ্চি অনায়াসে অতিক্রম করতে পারে আমেরিকান এ কুকুরটি। অন্যদিকে, ছাগল এই দুই প্রাণীর চেয়ে বেশ পেছনে পড়ে আছে। তার সর্বোচ্চ সক্ষমতা ১১৩ সেন্টিমিটার। ২০১৫ সালের ১৪ জুন নিজ প্রাজতির মধ্যে সর্বোচ্চ লাফ দিয়ে রেকর্ডটি গড়ে ক্যাসপা নামে যুক্তরাজ্যের ওই ছাগলটি।

 

গোলকিপার কুকুর

ফুটবল খেলায় গোলরক্ষককে গোলবার আগলে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এক্ষেত্রে দীর্ঘদিন অনুশীলনের পরও অনেক তারকা গোলকিপারের বল ছাড়তে দেখা মেলে। সেখানে এক মিনিটে সর্বোচ্চ ১৪ বার বল ধরে গিনেস বুকে নাম লেখিয়েছেন পুরিট নামে এক জাপানি কুকুর। যদিও ফুটবল খেলার মতো বলটি এত বড় নয়, তারপরও ক্ষুদ্রাকৃতির ওই প্রাণীর কাছে এটা বেশি কিছু নয় কি।

 

তিন ফুট লেজের কুকুর

শিয়ালের লেজ হারানোর গল্প হয়তো আজও অনেকের মনে আছে। ফাঁদে লেজ কাটা পড়ে শিয়ালটি কিনা বিপাকে পড়েছিল। এরপর নিজের সম্মান বাঁচানোর জন্য বনের অন্য সব শিয়ালের লেজ কাটার ফন্দি এঁটেছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত তার উদ্দেশ্য ফাঁস হয়ে যায়। আসল কথা হলো লেজ প্রাণীদের সৌন্দর্যের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু সেই লেজের দৈর্ঘ্য যদি তিন ফুট হয় কেমন লাগবে? অবিশ্বাস্য হলেও কিওন (৩০.২ ইঞ্চি) নামের প্রায় সমান দৈর্ঘ্যের তেমনি একটি কুকুরের লেজের সন্ধান পাওয়া গেছে। বেলজিয়ামের সেই কুকুরটি লেজের জন্য ২০১৫ সালের আগস্টে গিনেস বুকে নাম লেখায়।

 

ছোট-বড় গরু

পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট গরুর অবস্থান ভারতের কেরালায়। মানিকিয়াম নামে ওই গরুর উচ্চতা মাত্র ২ ফুট (২৪.০৭ ইঞ্চি)। ২০১৪ সালে যখন গরুটি বিশ্বরেকর্ড গড়ে তখন তার বয়স ছিল ৪ বছর। যদিও গিনেস বুকের দাবি, বেচার জাতীয় ওই গরু সর্বোচ্চ ২ ফুট ২ ইঞ্চির মতো বড় হয়। অন্যদিকে, সবচেয়ে বড় গরুর উচ্চতা খুর থেকে পিঠ পর্যন্ত ৬ ফুটেরও (৭৪.৮ ইঞ্চি) বেশি। ব্লুসাম নামে উন্নত জাতের এই গরুটির অবস্থান আমেরিকার ইলিনয়ে। তবে অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, ব্লুসাম আজ আর প্রাণিকুলের মাঝে বেঁচে নেই। ইতিহাসের পাতায় নাম লেখিয়ে ২০১৫ সালের মে মাসে ১৩ বছর বয়সে পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
এই পাতার আরো খবর
up-arrow