Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ১১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১০ নভেম্বর, ২০১৭ ২১:৫০
৯ বছর বয়সে বক্তব্য রাখে নাসার বিজ্ঞান সম্মেলনে
১০ বছর বয়সেই গ্র্যাজুয়েট
১০ বছর বয়সেই গ্র্যাজুয়েট

নাম তানিশক আব্রাহাম। ভারতীয়-আমেরিকান ছেলেটার বয়স তখন মাত্র পাঁচ বছর। বিশ্বখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয় স্ট্যানফোর্ডের শিক্ষা প্রোগ্রামে তাকে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হলো। অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগেছিল, কী এমন আছে যে ছেলেটা এমন অবিশ্বাস্য সুযোগ পেল? সে প্রশ্নের জবাব পেতে অপেক্ষা করতে হলো মাত্র ছয় মাস। হ্যাঁ, ছয় মাসেই পাঁচ বছরের সেই বালক শিক্ষা প্রোগ্রাম সম্পন্ন করল। তানিশককে মেধাবী বলতে বাধা নেই। কিন্তু সে কতটা মেধাবী? সবাইকে চমকে দিয়ে পরের বছরগুলোতে হাইস্কুল আর কলেজে পড়েছে কেমিস্ট্রি, বায়োলজি আর জিওলোজি। বয়স তখন ৬। ৭ বছর বয়সে সে এস্ট্রোনমি নিয়ে পড়াশোনা করে পেল এ গ্রেড। অসম্ভব মেধাবী এই বালকের মেধার খবর রটে গেল সর্বত্র। দেশে দেশে মিডিয়াগুলোর আলো পড়ল তার ওপর। এই বালকের পড়াশোনার ফলাফল আর ব্যাপ্তি রীতিমতো সবাইকে অবাক করে দিয়েছে। মহাকাশ বিষয়ে আগ্রহ আর জানার পরিধি বাড়তে থাকায় তার কলেজের অধ্যাপক বললেন, তার জন্য এস্ট্রোনমি সেকশন চাই। কিন্তু এমন কোনো ক্লাবই নেই কলেজে। বাধ্য হয়ে অন্য অধ্যাপক ও শিক্ষক, শিক্ষানুরাগীরা এগিয়ে এলেন। তার কলেজেই খোলা হলো মহাকাশ বিষয়ে পড়াশোনার বিশেষায়িত ক্লাব। ৯ বছর বয়সে বিশ্ববাসী অবাক হয়ে দেখল তাকে। এবার সে হাজির নাসায়। বিশ্বের শীর্ষ মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান বক্তা হিসেবে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী বিজ্ঞান বক্তা হিসেবে নাসায় হাজির হয়ে রেকর্ড গড়ে সে। তানিশককে নিয়ে আরও অনেক চমকপ্রদ তথ্য দেওয়া যায়। যেমন নাসায় আসার আগে ৮ বছর বয়সে সে পিয়ানো বাদকের দলে নাম লেখায়। পেইন্টিং, সাঁতার, পিয়ানো বাজানোতেও দক্ষ সে। দাবা, টেবিল টেনিসে সমবয়সীদের কাছে সে অপ্রতিদ্বন্দ্বী। চারপাশে তার এত কর্মযজ্ঞ— তাকে নিয়ে হৈচৈ তো হবেই।

তাই লোকচক্ষুর আড়ালে তাকে নিয়ে যাওয়ার কথা উঠলেও সে সময় ভাগ করে সব কিছুতেই নিজেকে জড়াতে চায়। ১০ বছর বয়সে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে পড়াশোনার প্রতি তার কৌতূহল ও মনোযোগের প্রমাণ রাখে সে। পরের বছর আন্তর্জাতিক মিডিয়ার সামনে তাকে ভালোভাবে উপস্থাপনের সুযোগ দেওয়া হয়। ‘১১ বছর বয়সেই গ্র্যাজুয়েট’ বলে তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় সেই সময়। তখন তার বয়স ১২ বছর, সে সময় এক সাক্ষাৎকারে তানিশক বলেছিল, ‘আমি যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি, চিকিৎসক এবং চিকিৎসা গবেষক হতে চাই।’ সে পথেই হাঁটছে গত জুনে ১৪ বছরে পা রাখা বালক তানিশক।

এই পাতার আরো খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow