Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:০৬

বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ সিইও সুহাস গোপীনাথ

নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি সময়ের কথা। স্কুল শেষে বন্ধুরা যখন খেলার মাঠে সময় কাটাতেন, সুহাস যেতেন একটি ইন্টারনেট ক্যাফেতে...

শনিবারের সকাল ডেস্ক

বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ সিইও সুহাস গোপীনাথ

বিখ্যাত প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এমন ভারতীয় প্রধান নির্বাহীদের বেশির ভাগই বিশ্বের পরিচিত মুখ। যেমন নিকেশ অরোরা, পদ্মশ্রী ওয়ারিয়র, শান্তনু নারায়ণ এবং আরও অনেকেই আছেন এই তালিকায়। কিন্তু সবার চেয়ে একটু আলাদাভাবে নজর কেড়েছেন তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান গ্লোবালস ইনকরপোরেশনের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুহাস গোপীনাথ। ভারতের এই তরুণ মাত্র ১৭ বছর বয়সেই কোম্পনিটির সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। ‘দ্য লিমকা বুক অব রেকর্ডস’ সুহাসকে বলছে পৃথিবীর সর্বকনিষ্ঠ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। ছেলেবেলা থেকেই কম্পিউটারের ওপর বিশেষ ঝোঁক ছিল সুহাসের। নিজে নিজেই শিখেছেন ওয়েবসাইট তৈরির কাজ। ১৯৯৮ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে সুহাস তার প্রথম ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছিলেন। দারুণ আইডিয়া ছিল সেটি। তিনি চেয়েছিলেন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে যেখানে ভারতীয়রা নানারকম অনুষ্ঠান, বিভিন্ন খাবার জায়গার টিপস এবং তাদের আগ্রহের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবেন। আদতে তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কথাই ভেবেছিলেন। তবে পরবর্তী সময়ে ওয়েবসাইটটি হ্যাক হয়ে যায়। স্কুল শেয় করেই ছুটে যেতেন ইন্টারনেট ক্যাফেতে। সারা দিন ক্যাফেতেই সময় কাটত তার। এভাবেই ইন্টারনেট দুনিয়ার সব অলিগলি মুখস্থ হয়ে যায় সুহাসের। একসময় স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন নিজেই কিছু করার।

মেধা, আগ্রহ আর পরিশ্রম এক বিন্দুতে মিলিত হলে সাফল্য আসবেই। সুহাসের হাতেও সাফল্য এসে ধরা দেয়। তার আগে যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালি থেকে ডাক পান। কিন্তু তাদের সঙ্গে কাজ করেননি তিনি। সুহাসের ভাষ্যমতে, ‘তারা আমাকে তাদের প্রতিষ্ঠানে কাজের প্রস্তাব দেয়। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রে আমার পড়াশোনার খরচ দেবে বলেও জানিয়েছিল। কিন্তু আমি রাজি হইনি। যা আমি নিজেই নিজের প্রতিষ্ঠানের জন্য করতে সক্ষম, তা আমি অন্যের জন্য করতে যাব কেন!’

মাত্র ১৪ বছর বয়সেই তিনি নিজের প্রতিষ্ঠান চালু করতে চান। কিন্তু ভারতের আইন অনুযায়ী ১৮ বছর বয়সের আগে কেউ নিজের প্রতিষ্ঠান চালু করতে পারবে না। 

তাই শুরুটা একটু বিলম্ব হলেও কোনো বাধা সুহাসকে আটকে রাখতে পারেনি। তিন বন্ধুকে নিয়ে অনলাইনে নিজের প্রতিষ্ঠানটি নিবন্ধন করিয়ে কাজ শুরু করেন। বেশ কয়েকজন কর্মী নিয়োগ দিয়ে খুলে বসেন নিজের অফিস। ২০০০ সালে এসে ১৭ বছর বয়সে নিজের প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব নেন সুহাস গোপীনাথ।

গ্লোবালস ইনকরপোরেশনের অফিস বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, কানাডা, জার্মানি, ইতালি, স্পেন, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর এবং মধ্যপ্রাচ্যে রয়েছে। বর্তমানে তার সব প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে ভারতের প্রায় ২০০ এবং বিভিন্ন দেশের প্রায় ৬০ জন কর্মী কাজ করছেন। ২০০৭ সালে তিনি ‘দ্য ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর হিউম্যান ভ্যালুজু’র পক্ষ থেকে ‘ইয়ং অ্যাচিভার অ্যাওয়ার্ড’ লাভ করেন।


আপনার মন্তব্য