Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৪
বাংলাদেশ-তাজিকিস্তান মুখোমুখি
বাছাই পর্ব
নিজস্ব প্রতিবেদক
বাংলাদেশ-তাজিকিস্তান মুখোমুখি
ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে কোচ ডি ক্রুইফের সঙ্গে অধিনায়ক মামুনুল —সংগৃহীত

তাজিক মাটিতে তাজিকিস্তানের বিপক্ষে লড়াই। কী করবেন আজ মামুনুলরা? ফুটবলে এখন যে মান তাতে বাংলাদেশের হারটা স্বাভাবিক ঘটনাই বলা যায়। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে দুশানবের অ্যাওয়ে ম্যাচে বাংলাদেশ ৫-০ গোলে হার মানে। প্রায় একই দল এশিয়ান কাপ প্লে-অফ ম্যাচে তাজিকিস্তানের বিপক্ষে মুখোমুখি হবে। তার পরও কোচ ক্রুইফ চাচ্ছেন কোনোমতে ম্যাচটা ড্র করতে। দুশানবেতে পৌঁছানোর পরই বাংলাদেশ প্রশিক্ষণে নামে। ক্রুইফ বার বারই বলছেন, তাজিকিস্তান নিঃসন্দেহে শক্তিশালী দল। তাদের মাঠে জয় নয়, ড্র করাটাই কঠিন। খেলোয়াড়রা নিজেদের সেরা নৈপুণ্য প্রদর্শন করতে পারলে ড্র সম্ভব। ক্রুইফ কৌশলগত কারণে এড়িয়ে গেলেও আজ মূলত রক্ষণাত্মক পদ্ধতিতে খেলবে বাংলাদেশ। কারণ তাজিকিস্তানের লক্ষ্য বড় জয়। গোল যেন বেশি না খায় সে চেষ্টাটাই করবে। তাজিকদের কোচ হাকিমের এটি প্রথম ম্যাচ। তিনি জোর গলায় বলেছেন, ‘আমার লক্ষ্য বাছাই পর্ব নয়, ২০১৯ সালে দলকে এশিয়ান কাপে মূল পর্বে নিয়ে যাওয়া।’ এতেই বোঝা যায় তাজিকরা নিজেদের মাঠে কতটা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে। হাকিম বলেন, ‘বাংলাদেশকে কোনোভাবেই দুর্বল ভাবছি না। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে তাদের খেলা আমি দেখেছি। দলে বেশ কজন কুশলী ফুটবলার রয়েছে। যারা যে কোনো সময় গোল করতে পারে। সুতরাং পুরো আক্রমণমুখী না হয়ে রক্ষণভাগেও সতর্ক থাকতে হবে।’

দলে শৃঙ্খলাভঙ্গের অপরাধে গত মার্চে মামুনুল ইসলামকে জাতীয় দল থেকে এক বছর নিষিদ্ধ করে বাফুফে। ক্ষমা চাওয়ায় গত মাসেই তার শাস্তি তুলে নেওয়া হয়। শুধু মামুনুল নন, সোহেল রানা ও জাহিদ হাসানের নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেওয়া হয়েছে। অবশ্য জাহিদ প্লে অফ ম্যাচ খেলছেন না। জাতীয় দলে কুশলী ও অভিজ্ঞ ফুটবলার সংকটের কারণে মূলত মানুনুল ও সোহেলকে ফিরিয়ে আনা হয়। শুধু তাই নয়, হারানো নেতৃত্বও ফিরে পেয়েছেন মামুনুল। তারই নেতৃত্বে গত বছর দুশানবেতে বাংলাদেশ ০-৫ গোলে হার মানে। ঢাকা ছাড়ার আগে মামুনুল বলে যান, ‘নেতৃত্ব ফিরে পাওয়ায় দায়িত্ব আরও বেড়ে গেল। দেশকে ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করব।’

বুধবার দুশানবেতে মামুনুল বলেন, ‘তাজিকিস্তান শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। তার পরও আমরা চেষ্টা করব ভালো করার। গুছিয়ে খেলতে পারলে অবশ্যই ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা যাবে।’ ড্রর লক্ষ্য নিয়ে বাংলাদেশ আজ মাঠে নামবে। ৭ জুন ঢাকায় হোম ম্যাচে লড়বেন মামুনুলরা। বাংলাদেশ চাচ্ছে দুশানবেতে ড্র করে ঢাকার ম্যাচ জিতে বাছাই পর্ব নিশ্চিত করা। কিন্তু তা কি সম্ভব? বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ঢাকায় হোম ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে বাংলাদেশ কতদূর যেতে পারবে, তাই এখন দেখার বিষয়। অবশ্য তাজিকদের বিপক্ষে হেরে গেলেও বাছাই পর্বে খেলার সম্ভাবনা টিকে থাকবে। পরে তখন ভুটানের বিপক্ষে প্লে-অফ ম্যাচ খেলতে হবে। এখানে জিতলেই এশিয়ান কাপ ফুটবলে বাংলাদেশ বাছাই পর্ব খেলার সুযোগ পাবে।

up-arrow