Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৫
প্রথম ম্যাচেই পাঠানের মারকুটে ব্যাটিং
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রথম ম্যাচেই পাঠানের মারকুটে ব্যাটিং
ইউসুফ পাঠান

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এবার একের পর এক চমক দেখিয়েই যাচ্ছে আবাহনী। দুই-এক ম্যাচ পর পরই তাদের দলে নতুন বিদেশি খেলোয়াড়।

সব শেষে তারা নিয়ে এসেছে ভারতের ইউসুফ পাঠানকে। কলকাতা নাইট রাইডার্সে সাকিবের সতীর্থ। ভারতীয় তারকা প্রথমবারের মতো ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলতে এসে প্রথম ম্যাচেই কাল করেছেন মারকুটে ব্যাটিং। বাংলাদেশের ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যাচে যেখানে রানই হয় না সেখানেও পাঠান ৪৭ বলে ৬০ রানের ধামাকা এক ইনিংস খেলেছেন। দুটি ছক্কা ও সাতটি বাউন্ডারি। শেষের দিকে পাঠানের চেয়েও ঝড়ো গতিতে রান তুলেছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তিনি ৪৯ বলে হার না মানা ৬৪ রানের ইনিংস খেলে আবাহনীর জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছেড়েছেন। মোসাদ্দেক চারটি করে ছক্কা ও চার হাঁকিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন। ৫ উইকেটে পাওয়া এই জয়ে ১০ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তিন নম্বরে উঠেছে আবাহনী।

গতকাল ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ক্রিকেট কোচিং স্কুলকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমি। প্রথমে ব্যাটিং করে ১৮৫ রান করে সিসিএস। সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে জিতে যায় একাডেমি। সর্বোচ্চ ৮৭ রান এসেছে সাক্সেনার ব্যাট থেকে।

বিকেএসপি-তে প্রথমে ব্যাটিং করে আবাহনীকে ২৪১ রানের টার্গেট দেয় প্রাইম ব্যাংক। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৫৬ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় আবাহনী। সেখান থেকে পাঠান ও মোসাদ্দেকের দুই হাফ সেঞ্চুরি আবাহনীকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যায়। কাল তামিম ইকবাল ৪০ রান করলেও সাকিব আল হাসান ৩ রানের বেশি করতে পারেননি। তবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ঠিকই বল হাতে দাপট দেখিয়েছেন। মাত্র ৩৫ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। আবাহনীর আরেক স্পিনার সাকলাইন সজীবও ৩৭ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। এই দুই স্পিনারের ঘূর্ণিতে কাল ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি প্রাইম ব্যাংক।

up-arrow