Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০৭
বাংলাদেশের সোনালি সময় আসছে : হাতুরাসিংহে
ক্রীড়া প্রতিবেদক
বাংলাদেশের সোনালি সময় আসছে : হাতুরাসিংহে

ফুটবলের প্রচলিত শব্দ ‘গোল্ডেন জেনারেশন’। কিন্তু ক্রিকেটে সত্যিকার অর্থে গোল্ডেন জেনারেশনের কথা আলোচনা হয় না। বাংলাদেশের ক্রীড়াপ্রেমীরা এই শব্দটির সঙ্গে খুব পরিচিত নন। কিন্তু এখন আলোচনা হচ্ছে দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে। মাশরাফি-সাকিব-তামিম-মুশফিকদের বলা হচ্ছে দেশের ক্রিকেটের ‘গোল্ডেন জেনারেশন’। এসব ক্রিকেটারের হাত ধরেই এখন স্বর্ণসময় পার করছে বাংলাদেশের ক্রিকেট। এগিয়ে যাচ্ছে বীরদর্পে। পরিণত হচ্ছে পরাশক্তিতে। সাফল্যের মোড়কে আঁটা দলটির কোচ চন্ডিকা হাতরাসিংহে। এ দেশের ক্রিকেটের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সফল কোচও। শ্রীলঙ্কান বংশোদ্ভূত কোচের হাত ধরেই এগিয়ে যাচ্ছে টাইগাররা। ৩০ জুন মেয়াদ শেষ তার। নতুন করে চুক্তির মেয়াদ বাড়াতে বুধবার সিডনি থেকে ঢাকায় আসেন হাতুরাসিংহে। গতকাল মিডিয়ার মুখোমুখিতে আশার কথা শোনালেন দেশবাসীকে। বললেন, ‘আগামী ২-৩ বছর হবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সোনালি সময়’।

২০১৪ সালের জুনে টাইগারদের দায়িত্ব নেন হাতুরাসিংহে। শুরুতে ব্যর্থতার খোলশ ছেড়ে বেরুতে পারেননি। হারের বৃত্তেই ঘুরপাক খাচ্ছিল বাংলাদেশ। ২০১৪ সালের জিম্বাবুয়ে সিরিজে যখন মাশরাফির হাতে আর্ম ব্যান্ডটা লাগিয়ে দেওয়া হয়, তখন থেকেই পাল্টে যেতে থাকে চিত্র। পাল্টাতে থাকে পারফরম্যান্স। ২০১৫ সাল ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেটের সোনালি বছর। মাশরাফি-সাকিবদের গোল্ডেন জেনারেশন দৃঢ়তায় বিশ্বকাপ ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনাল খেলে। প্রথমবারের মতো পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতে বাংলাদেশ। টানা পাঁচ ওয়ানডে সিরিজে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেই সামনে এগোচ্ছে। আগামী ২-৩ বছর মাশরাফি, সাকিবদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট অনেক এগিয়ে যাবেন বলেন টাইগার কোচ হাতুরাসিংহে, ‘আগামী ২-৩ বছর হবে বাংলাদেশ ক্রিকেটের স্বর্ণসময়। মাশরাফি, তামিম, সাকিব, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহদের মতো খেলোয়াড়রা খেলছেন। এদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলার এখনই সময়। তবে এটা অনেক চ্যালেঞ্জিং হবে বলেই মনে করি। গত দুই বছর দেশের মাটিতে বেশি খেলেছি। এখন দেশের বাইরে খেলতে হবে বেশি ম্যাচ। তাই চ্যালেঞ্জ হবে প্রতিটি মুহূর্তে। ভালো খেলেই প্রমাণ করতে হবে আমরা কতটা এগিয়েছি।’

টানা পাঁচটি ওয়ানডে সিরিজ জিতে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে জায়গা নেয় বাংলাদেশ। আট জাতির চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে পেছনে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। বুধবার আইসিসি যে গ্রুপিং প্রকাশ করেছে, তাতে বাংলাদেশ খেলবে ‘এ’ গ্রুপে। গ্রুপের অপরাপর দলগুলো-স্বাগতিক ইংল্যান্ড, বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ও রানার্স আপ নিউজিল্যান্ড। গ্রুপটিকে কঠিন বললেন কোচ হাতুরাসিংহে, ‘আমাদের গ্রুপের তিনটিই দলই শক্তিশালী। আমি মনে করি এটা কঠিন গ্রুপ। শক্তিশালী গ্রুপ হলেও আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এজন্য ভালো প্রস্তুতি নিতে হবে। ভালো করার একটি বাড়তি পরিকল্পনাতো রয়েছেই আমাদের। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে আমরা আগে আয়ারল্যান্ড যাব। সেখানে নিউজিল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে একটি তিন জাতির টুর্নামেন্ট খেলব।’  বেশ কিছুদিন ধরেই ঘরোয়া ক্রিকেটের আলোচিত ইস্যু নির্বাচক প্যানেল। বিসিবি সভাপতি স্পষ্ট করে বলেছেন, নির্বাচক প্যানেলে কোচকে তিনি দেখতে চান। বিসিবি সভাপতির বক্তব্যের পরই পরিষ্কার ফারুক আহমেদের নির্বাচক প্যানেলের সঙ্গে থাকছেন হাতুরাসিংহে। নির্বাচক প্যানেলে অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি মিডিয়া থেকে শুনেছেন নিয়ে জানতেন না বলেন কোচ, ‘আমি মিডিয়ার কাছ থেকে বিষয়টি শুনেছি। আমি মনে করি নির্বাচক পলিসিতে কোচের অন্তর্ভুক্তি খুব ভালো সিদ্ধান্ত। এতে আমারও দায়িত্ব থাকবে। আমি সবার কাজকে সহজ করে দিতে চাই।’ 

up-arrow