Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৩ জুন, ২০১৬ ০০:০৯
শুরুর অপেক্ষায় কোপা আমেরিকা কাপ
ক্রীড়া ডেস্ক
শুরুর অপেক্ষায় কোপা আমেরিকা কাপ
শত বছরের কোপা আমেরিকা কাপে শিরোপা জয়ের টার্গেটে আর্জেন্টিনার মিশন শুরু ৭ জুন। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলির বিপক্ষে মাঠে নামার আগে প্রস্তুতি নিচ্ছে মেসি বাহিনী —এএফপি

নির্ধারিত সময় ২০১৯। বাকি আরও তিন বছর। কিন্তু দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল ফেডারেশন সেই সময়ের অপেক্ষা করেনি। নিয়মের বেড়াজাল ভেঙে তিন বছর আগেই আয়োজন করছে বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো ফুটবল টুর্নামেন্ট ‘কোপা আমেরিকা কাপ’। আগামীকাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কলম্বিয়া ম্যাচ দিয়ে মাঠে শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকা কাপের ৪৫ নম্বর আসরটি। ১৬ দলের অংশ গ্রহণে টুর্নামেন্টটির আবেদন ভিন্নমাত্রা পেয়েছে এবার। টুর্নামেন্টটি আগের যে কোনো আসরের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্ব বহন করছে। এ বছর টুর্নামেন্টটি ১০০ বছর উদযাপন করবে। শত বছরকে স্মরণ করতেই গোটা আমেরিকা মহাদেশকে নিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে টুর্নামেন্টটি।

শত বছরের টুর্নামেন্টটি হবে যুক্তরাষ্ট্রের ৯ শহরের ১০ ভেন্যুতে। টুর্নামেন্টটির সর্বশেষ আসর হয়েছিল ২০১৫ সালে এবং চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল চিলি। ফাইনালে খেলেছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। মেসির দল হেরেছিল টাইব্রেকারে। এবারও দুই দল একই গ্রুপে। দুই দল মুখোমুখি হবে ৭ জুন। ‘ডি’ গ্রুপের বাকি দুই দল পানামা ও বলিভিয়া। ব্রাজিল খেলছে ‘বি’ গ্রুপে। বাকি তিন দল ইকুয়েডর, হাইতি ও পেরু। পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের ৫ জুন প্রথম ম্যাচের প্রতিপক্ষ ইকুয়েডর। রিওডি জেনিরো অলিম্পিকে খেলবেন নেইমার। তাই কোপা আমেরিকা কাপে খেলছেন না বার্সেলোনার তারকা স্ট্রাইকার। পেশীর ইনজুরির টুর্নামেন্ট শুরুর ৪৮ ঘণ্টা আগে সরে যেতে হয়েছে বর্ষিয়ান স্ট্রাইকার কাকাকে। তার জায়গায় নেওয়া হয়েছে পাওলো হেনরিক গানকোকে। ইনজুরড ডগলাস কস্তার জায়গায় কাকাকে দলে নিয়েছিলেন কোচ কার্লোস দুঙ্গা। এবার বাদ দিতে হলো কোচকে। ২৬ বছর বয়সী গানসো সর্বশেষ ব্রাজিল দলে খেলেছিলেন ২০১২ সালে বসনিয়া-হারজোগোভিনার বিপক্ষে। আসরে ব্রাজিল সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল  ২০০৭ সালে। আর্জেন্টিনা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ১৯৯৩ সালে।

এবারের আসরের ফেবারিট আর্জেন্টিনা। দলের অন্যতম সেরা তারকা মেসি। কিন্তু রয়েছেন ইনফর্ম গঞ্জালো হিগুইন। যিনি ইতালিয়ান সিরি এ-তে নেপোলির পক্ষে ৩৫ ম্যাচে ৩৬ গোল করেন। রয়েছেন সার্জিও অ্যাগুইরো, মার্সেল ডি মারিয়ার মতো তুখোড় ফুটবলার। বিপরীতে ব্রাজিল দলে নেই তারকা। খেলছেন না নেইমার। ইনজুরিতে সরে যেতে হলো কাকাকে।




up-arrow