Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৩ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৫
মাশরাফি মুশফিকের অন্যরকম লড়াই
ক্রীড়া প্রতিবেদক
মাশরাফি মুশফিকের অন্যরকম লড়াই

মাশরাফি বিন মর্তুজা— বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-২০ দলের অধিনায়ক। মুশফিকুর রহিম— টেস্ট দলের অধিনায়ক। জাতীয় দলের দুই অধিনায়ক আজ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন। ফতুল্লার খান ওসমান আলী স্টেডিয়ামে মুশফিকের মোহামেডান খেলবে মাশরাফির কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের বিরুদ্ধে। দুই দলের জন্যই আজকের ম্যাচে জয়টা মহাগুরুত্বপূর্ণ।

সুপার লিগে আজ আরও দুটি ম্যাচ রয়েছে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব খেলবে ব্রাদার্স ইউনিয়নের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে মুখোমুখি হবে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ও লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। মাশরাফিরা লড়বেন রেলিগেশন লিগ এড়ানোর জন্য। কাগজে-কলমে আশা থাকলেও কার্যত সুপার লিগের পথটা রুদ্ধই হয়ে গেছে তাদের সামনে। আর মোহামেডানের জন্য এটি পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ওঠার ম্যাচ। জিতলেই শীর্ষে উঠে যাবে মুশফিকের দল। বর্তমানে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর। তাদের চেয়ে দুই পয়েন্ট কম মোহামেডানের। তবে মতিঝিলের দলটি একটি ম্যাচও কম খেলেছে। তা ছাড়া পয়েন্ট বেশি হলেও দোলেশ্বরের চেয়ে নেট রানরেট অনেক বেশি মোহামেডানের। তাই আজ কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে হারাতে পারলেই শীর্ষে উঠে যাবে তারা।

মোহামেডানের জন্য দুর্ভাগ্যই বটে! কেন না এই মুহূর্তের বিশ্বের সবচেয়ে তারকা বোলার মুস্তাফিজুর রহমানকে তারা দলে নিলেও আজকের ম্যাচে পাচ্ছে না। আইপিএল জিতে মুস্তাফিজ এখন তার গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরায়। কিন্তু আজকের ম্যাচে তার খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তা ছাড়া মুস্তাফিজের সঙ্গে ইংলিশ কাউন্টি ক্লাব সাসেক্সের সঙ্গে চুক্তিও রয়েছে। এছাড়া সামান্য ইনজুরিও রয়েছে। মুস্তাফিজকে সাসেক্সে খেলানো হবে কিনা সেটা নিয়েও চলছে রশি টানাটানি। এমন অবস্থায় হয়তো বড় ক্ষতিই হয়ে গেল মোহামেডানের। তারপরেও আজ জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী মুশফিক। মাশরাফিদের জন্যও ম্যাচটা অনেকটা ‘ডু অর ডাই’র মতো। হারলেই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যাবে রেলিগেশনে লিগে খেলা। তাই মোহামেডানকে আটকানোর পরিকল্পনা নিয়ে আজ মাঠে নামছেন নড়াইল এক্সপ্রেস। সুপার লিগে খেলতে হলে জয়ের বিকল্প নেই রূপগঞ্জ ও শেখ জামালের। আগের নয় ম্যাচে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল শেখ জামালের পয়েন্ট ১০। সমান সংখ্যক ম্যাচে এক পয়েন্ট বেশি ভিক্টোরিয়ার। দুই দলই জয়ের জন্য মরিয়া। ভিক্টোরিয়া আজ জিতলেই নিশ্চিত হয়ে যাবে তাদের সুপার লিগ। অন্যদিকে শেখ জামালও চাচ্ছে ভিক্টোরিয়াকে হারিয়ে সুপার লিগের পথে আরেক ধাপ এগিয়ে যেতে।

সুপার লিগ অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে ব্রাদার্স ইউনিয়নের। আগে ৯ ম্যাচের মধ্যে তারা হেরেছে ৫টিতেই। তারপরেও কাগজে-কলমে আশার প্রদীপটা জ্বলছে টিম টিম করে। সেক্ষেত্রে আজকের ম্যাচে তো বটেই জিততে হবে পরের ম্যাচেও, সেই সঙ্গে অপেক্ষা করতে হবে অন্য দলগুলোর দিকেও। তবে সুপার লিগের চেয়েও এখন ব্রাদার্সের প্রথম টার্গেট হয়তো রেলিগেশন থেকে রক্ষা পাওয়া। তিন ম্যাচ থাকলেও সুপার লিগে আজ ফতুল্লার ম্যাচটির দিকেই তাকিয়ে থাকবেন ক্রিকেটামোদীরা। জাতীয় দলের দুই অধিনায়কের লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত কে জয়ী হবেন? যদিও শক্তিমত্ত্বার দিক দিয়ে কলাবাগানের চেয়ে এগিয়ে মোহামেডান। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং —তিন বিভাগেই শক্তিশালী মুশফিকের দল। স্পিন ও পেস বোলিংয়ের ভারসাম্যটাও অসাধারণ। শুভাশিষ ও নাঈম ইসলাম জুনিয়র নিয়মিত উইকেট পাচ্ছেন। তা ছাড়া এনামুল হক জুনিয়রও রয়েছেন এই দলে। তাই পরীক্ষিত এক বোলিং বিভাগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

কলাবাগানের ভরসা হচ্ছে মাশরাফি বিন মর্তুজা। আগের ম্যাচে মাশরাফি একাই ছয় উইকেট নিয়ে দারুণ এক জয় এনে দিয়েছিলেন। এর আগে এক ম্যাচে ঝড়ো এক সেঞ্চুরি করে ম্যাশ কলাবাগান এনে দিয়েছিলেন। কলাবাগানের যে চার জয় এখন পর্যন্ত তার দুটিই এসেছে মাশরাফির একক নৈপুণ্যে।




up-arrow