Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১৫ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ১৪ জুন, ২০১৬ ২৩:১৫
সুপার লিগে সুপার লড়াই
আবাহনী-মোহামেডান মুখোমুখি
মেজবাহ্-উল-হক
সুপার লিগে সুপার লড়াই

বিতর্ক! ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে সব কিছু ছাপিয়ে এখন বিতর্ক! তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ব্যক্তিগত সাফল্য —সব কিছুই এখন গৌণ, আলোচনা হচ্ছে কেবল ‘বিতর্ক’ নিয়ে। আর এই বিতর্কের কেন্দ্রে রয়েছে আবাহনী! এবারের লিগে আবাহনীর অধিকাংশ ম্যাচেই কোনো না কোনো বিতর্ক সৃষ্টি হচ্ছে। ইচ্ছা মতো ভেন্যু পরিবর্তন, পক্ষে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত, সব শেষে তামিম কাণ্ডে তো প্রাইম দোলেশ্বরের বিরুদ্ধে ম্যাচই পণ্ড হয়ে গেছে। যে ম্যাচের ফয়সালা এখনো হয়নি।

বিতর্কের আবহের মধ্যেই আজ বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে মুখোমুখি হচ্ছে দুই জায়ান্ট মোহামেডান ও আবাহনী। আজ আবার নতুন কোনো বিতর্ক সৃষ্টি হচ্ছে না তো? অবশ্য ইতিমধ্যেই মোহামেডান ক্লাবের কর্মকর্তাদের কণ্ঠে হতাশার সুর, দেশের সবচেয়ে বড় দুই দলের খেলা সেটি কিনা হচ্ছে বিকেএসপিতে! যে মাঠে আগের দিন বৃষ্টি হলে পরের দিনও ম্যাচ মাঠে গড়ানো সম্ভব হয় না। লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে ‘লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ বনাম ব্রাদার্স ইউনিয়ন’ খেলার আগের দিন বৃষ্টি হওয়ায় ম্যাচ মাঠে গড়ায়নি। অথচ সেই বিকেএসপি মাঠেই কিনা হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেটে সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাচ ‘আবাহনী বনাম মোহামেডান’। 

কেন সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাচটি ‘হোম অব ক্রিকেট’ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে হচ্ছে না! বিষয়টি জানতে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিশের (সিসিডিএম) সমন্বয়ক আমিন খানের সঙ্গে বার বার চেষ্টা করা হলেও ফোনে তাকে পাওয়া যায়নি।

বিকেএসপিতে ম্যাচ প্রসঙ্গে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ডিরেক্টর ইনচার্জ লোকমান হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘বিষয়টা অবশ্যই হতাশার। সমর্থকদের জন্যও হতাশার। ম্যাচের গুরুত্ব বিবেচনা করেই আমি সিসিডিএমকে অনুরোধ করে চিঠি দিয়েছিলাম। যাতে ম্যাচটা সব শেষে হলেও মিরপুরে করা যায়। কিন্তু আমাকে জানানো হয়েছে, যেহেতু ম্যাচের সিডিউল আগে থেকেই তৈরি করা আছে তাই এই মুহূর্তে পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।’

বিকেএসপি যে আবাহনীর পছন্দের মাঠ সেটা তো কারও অজানা নয়! সব শেষ প্রাইম দোলেশ্বরের বিরুদ্ধে বিতর্কের ম্যাচসহ আবাহনী এ পর্যন্ত ১২টি ম্যাচের মধ্যে ছয়টি খেলেছে বিকেএসপিতে। আজকের ম্যাচটি নিয়ে ১৩ ম্যাচের মধ্যে বিকেএসপিতে ৭টি ম্যাচ খেলা হবে আবাহনীর। অথচ ভেন্যু তিনটা। এর আগে আবাহনী মিরপুরে খেলেছে তিনটি ম্যাচ। তিনটিতেই তারা হেরেছে। মিরপুরের তিন ম্যাচে শেখ জামাল, লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও মোহামেডানের বিরুদ্ধে হেরেছে আবাহনী। কিন্তু বিকেএসপিতে এখনো কোনো ম্যাচ হারেনি। তাই লাকি গ্রাউন্ড হিসেবে বিকেএসপিকেই তারা বেছে নিয়েছে।

দেশের দুই জায়ান্ট আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচে এখনো মর্যাদার লড়াইয়ের একটা আবহ থাকেই। আগের ম্যাচে মোহামেডানের বিরুদ্ধে মিরপুরে দাঁড়াতেই পারেনি আবাহনী। সে ম্যাচে তামিম ইকবালের দল হেরেছিল ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। তাই এ ম্যাচে প্রতিশোধের নেশায় মত্ত আবাহনী।

মোহামেডান-আবাহনীর বাইরে আজকের লড়াইটা টেস্ট অধিনায়ক ও সহঅধিনায়কের মধ্যে লড়াইও বটে। মুশফিকুর রহিম বনাম তামিম ইকবাল। শক্তির বিচারে এগিয়ে থাকবে তামিমের আবাহনীই। কেননা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান খেলবেন তামিমের দলে। তবে এই ম্যাচে ফেবারিটের কথা চিন্তা করলেও মোহামেডানকেই এগিয়ে রাখতে হতো, যদি তাদের দলের সেরা তারকা মুস্তাফিজুর রহমানকে তারা দলে পেত। আইপিএল থেকে ফিরে সাকিব আবাহনীতে যোগ দিলেও মুস্তাফিজকে রাখা হয়েছে বিশ্রামে। টানা ম্যাচ খেলার কারণে কিছুটা ইনজুরি ভুগছেন কাটার মাস্টার।

আজকের যে দলই হারবে তারা চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে দূরে চলে যাবে। তাই দলই যে জয়ের জন্য মরিয়া হয়ে মাঠে নামবে— তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে সব কিছুর পরও শঙ্কা একটাই— শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি ভালোভাবে শেষ করা সম্ভব হবে তো!




up-arrow