Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ জুন, ২০১৬ ২২:৫৩
নতুন প্রজন্মের পুরনো স্পেন
রাশেদুর রহমান
নতুন প্রজন্মের পুরনো স্পেন
জয়ের নায়ক আলভারো মোরাতা

জাভি-পুয়ল-ক্যাসিয়াসদের যুগ শেষ। ক্যাসিয়াস এখনো টিকে আছেন মুমুর্ষু অবস্থায়। যে কোনোদিন গ্লাভস খুলে রাখতে হবে তাকেও। ইনিয়েস্তাও শেষ সময়। স্পেনের সোনালি যুগের তারকাদের মধ্যে এখনো টিকে আছেন কেবল সেস ফ্যাব্রিগাস আর ডেভিড সিলভা। দুজনেরই বয়স কিছুটা কম। আরও বেশ কিছুদিন হয়তো টিকে থাকবেন ফুটবল মাঠে। তারপর! কী হবে ইউরো-বিশ্বকাপ-ইউরো চ্যাম্পিয়নদের! টানা তিনটা শিরোপা জয়ী দলের হাল ধরবে কে! স্পেনীয় ফুটবল দর্শনেরই বা কী হবে!  এসব প্রশ্ন ফুটবলের সমালোচক আর ভক্ত উভয়েরই মাথায় ঘুট ঘুট করছিল দীর্ঘদিন ধরে। স্পেনের সোনালি প্রজন্মের বিদায়ে যে শূন্যতায় হাহাকার উঠত তা বুঝি হচ্ছে না। তেমন ইঙ্গিতই দিয়ে চলেছে নবাগতরা। আলভারো মোরাতা, লুকাস ভাজকুয়েজ আর নলিতোদের মধ্যে এখন স্পেনীয়রা খুঁজে পাচ্ছে ডেভিড ভিয়া, ফার্নান্দো তোরেসদের প্রতিচ্ছবি। একেকজন যেন স্প্যানিশ আর্মাডার সেনানায়কের ভূমিকায়! নতুন প্রজন্মের পায়ে পায়ে এখন দেখা দিয়েছে সেই স্পেনের পুরনো রূপ! এইতো এবারের উয়েফা ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ শুরুর আগে সমালোচকরা বলাবলি করছিল, এই স্পেনের কী হবে! গ্রুপ পর্বটা কোনোরকম পাড়ি দিতে পারলেও হয়। বিশেষ করে প্রীতিম্যাচে জজিয়ার কাছে হেরে যাওয়ার পর স্পেনকে ঘিরে প্রশ্নটা আরও জোরদার হয়েছিল। তবে নতুন প্রজন্মের সারথিরা ভক্ত-সমালোচকদের বুঝিয়ে দিল, এ স্পেন সহসাই হারিয়ে যাবার মতো নয়। সেই টিকি-টাকা এখন আরও ধারাল হয়েছে। সঙ্গে যোগ হয়েছে কাউন্টার আক্রমণের নতুন পদ্ধতি। যার জোরে তারা ইউরো কাপের প্রথম দুইটা ম্যাচ জিতে নিয়েছে অনায়াসেই। চেকদের হারিয়েছে ১-০ গোলে। আর গত শুক্রবার নীসের অ্যালাইঞ্জ রিভেরাতে তুর্কীদের হারাল ৩-০ গোলে। প্রথম ম্যাচে পিকে ছিলেন নায়ক। আর গত শুক্রবার! তরুণ মোরাতাই ম্যাচটা জিতিয়েছেন। দুর্দান্ত দুটি গোল করেছেন তিনি ম্যাচের ৩৪ ও ৪৮ মিনিটে। নলিতো ৩৭ মিনিটে একটা গোল করেছেন। গোলের ব্যবধান দিয়ে স্পেনীয় ফুটবলের নতুন প্রজন্মকে বিচার করলে ভুলই হবে। এবারের ইউরো কাপে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানিও এতটা মন ভরাতে পারেনি ভক্তদের। স্পেনের পাশাপাশি এবারের আসরে ফুটবলের ফুল ফুটাচ্ছে ইতালিও। দুই দলই এক ম্যাচ হাতে রেখে নিশ্চিত করেছে নকআউট পর্ব। ইতালি গত শুক্রবার সুইডেনকে হারিয়েছে। নকআউট পর্ব এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক ফ্রান্সও।

বুড়ো ভিসেন্ট দেল বস্ক কী আরও একবার স্পেনীয়দের শিরোপা উৎসবে মেতে উঠার সুযোগ করে দিবেন নাকি! নকআউট পর্ব নিশ্চিত হওয়ার পর বস্ক এবার যে কোনো স্বপ্ন দেখাতেই পারেন ভক্তদের। গত বিশ্বকাপে বাজে পারফর্ম করার পরও তার উপর আস্থা রেখেছে স্পেনের নির্বাচকরা। এবার সেই আস্থার প্রতিদানই দিতে চান দেল বস্ক। আর প্যারিসের অলি-গলিতে স্পেনীয়রা যে উৎসব করে চলেছে প্রতি নিয়ত তার একটা স্থায়ী রূপও দিতে চান তিনি। ইউরো কাপে গ্রুপ পর্বের লড়াই শেষ হওয়ার পথে। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটা দলের নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেছে।

up-arrow