Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : সোমবার, ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০১
পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত ইংল্যান্ডের
ক্রীড়া প্রতিবেদক
পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত ইংল্যান্ডের

জঙ্গিদের বর্বরোচিত হামলায় বাকরুদ্ধ বাংলাদেশসহ গোটা বিশ্ব। এমন নারকীয় ঘটনায় নিহত ২৮ জনের ২২ জনকেই গলা কেটে হত্যা করেছে জঙ্গীরা। ভয়াবহ এই হত্যাকাণ্ডের ধাক্কায় টালমাটাল বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজ। নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ফলে নিরাপত্তার অজুহাতে বাংলাদেশ সফর স্থগিত করতে পারে ইংল্যান্ড। দেশটির মিডিয়ায় এমন সংবাদই প্রকাশিত হয়েছে। যদিও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হবে। উল্লেখ্য, ৩০ সেপ্টেম্বর দুই টেস্ট ও ৩ ওয়ানডে খেলতে আসার কথা ইংল্যান্ডের।    

শুক্রবার রাতে গুলশানের হলি আর্টিজান নামে একটি কাফেতে অতর্কিত হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতে নিহত হয় ২৮ জন। সন্ত্রাসী হামলার পর ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) জানিয়েছে, ‘ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে তারা তাদের সরকারের পরামর্শ অনুসরণ করবে। ’ ইংল্যান্ডের সফরে আসার সিদ্ধান্ত নিতে ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিস (এফসিও) এবং নিজেদের নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে বলে জানিয়েছে ইসিবি। সফর নিয়ে ইসিবির এক মুখপাত্র বলেন, ‘ইসিবি আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত বাংলাদেশের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও মূল্যায়ন করবে। সফরের আগে ইংল্যান্ডের নিরাপত্তা পরিকল্পনার পুঙ্খানুপুঙ্খ ও ব্যাপক নিরীক্ষা করা হবে। ’ অক্টোবরে নিজ সরকারের সঙ্গে পরামর্শ করে বাংলাদেশে খেলতে আসেনি অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। দলটি অনূর্ধ্ব-১৯ যুব বিশ্বকাপ থেকেও নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিল। অথচ অনূর্ধ্ব-১৯ যুব বিশ্বকাপ, টি-২০ বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিল ইংল্যান্ড। শুক্রবার রাতের হামলার পর বৃটিশ হাইকমিশন গুলশান এলাকায় অবস্থানরত ব্রিটিশ নাগরিকদের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মেনে চলতে বলেছে।

স্কটল্যান্ডে এডিনবরায় আইসিসির সভা শেষে দেশে ফিরেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। দেশে ফিরে গতকাল মিডিয়ার মুখোমুখিতে ইংল্যান্ড সিরিজ হওয়ার  বিষয়ে আশার কথা শোনান বিসিবি সভাপতি, ‘বাংলাদেশে এমন ঘটনা ঘটবে ভাবতেই পারিনি। এই ঘটনার ধাক্কা থেকে ক্রিকেটও বাদ যাবে না। তারপরও আমি আশাবাদী সিরিজ নিয়ে। সিরিজ আয়োজনের জন্য আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টাই থাকবে। আমরা ইংল্যান্ডকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিব। ’

৩০ সেপ্টেম্বর ঢাকায় পা রাখার কথা ইংল্যান্ডের। ৭, ৯ ও ১২ অক্টোবর তিনটি ওয়ানডে এবং ২০-২৪ অক্টোবর এবং ২৮ অক্টোবর-১ নভেম্বর দুটি টেস্ট খেলবে ইংল্যান্ড। এখন সিরিজটাই ভেস্তে যাওয়ার পথে। উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে মুম্বাইয়ে হামলার পর দেশে ফিরে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। পরে অবশ্য দুটি টেস্ট খেলতে ফিরেছিল ভারতে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow