Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০১
সেরেনা থামবেন কোথায়
ক্রীড়া ডেস্ক
সেরেনা থামবেন কোথায়
উইলিয়ামস পরিবারের দুই মেয়েকে বহু দিন পর একসঙ্গে ট্রফি হাতে হাসতে দেখা গেল —এএফপি

দীর্ঘ একটা সময় শিরোপা শূন্য থাকার পর বাঁধাটা দূর করলেন উইলিয়ামস পরিবারের ছোট মেয়ে। সেরেনা উইলিয়ামস উইম্বলডন জিতেই স্থান নিলেন জার্মান কিংবদন্তি স্টেফিগ্রাফের পাশে। এই উইম্বলডনেই ২১ নম্বর গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা জিতেছিলেন তিনি গত বছর। এরপর ইউএস ওপেনে সেমিফাইনাল খেলেই বিদায়। অস্ট্রেলিয়া এবং ফ্রেঞ্চ ওপেনে ফাইনাল খেললেও শিরোপাবঞ্চিত ছিলেন তিনি। তবে সেরেনা উইলিয়ামসের অপ্রতিরোধ্য গতির সঙ্গে এবার আর পারলেন না অ্যাঞ্জেলিক কারবার। ২২ নম্বর গ্র্যান্ডস্লাম জেতার পর সেরেনা আরও বেশি ভয়ঙ্কর। আরও বেশি আগ্রাসী হয়ে উঠেছেন। এমনটা দাবি করছেন সেরেনার ফরাসি কোচ প্যাট্রিক।

গত শতকের শেষ দশকে টেনিস প্রাঙ্গণে পা রেখেছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। মেয়েদের টেনিসে তখন মার্টিনা হিঙ্গিসের দাপট চলছে। তবে ১৭ বছরের এক তরুণী সদর্পে বিচরণ করতে শুরু করেছিল টেনিস কোর্টে। অবশ্য এই ধারা দীর্ঘদিন টিকে থাকেনি। বিজ্ঞাপনের জগত টেনে নিয়েছিল সেরেনাকে। আনা কুর্নিকোভার মতো হারিয়ে যেতে বসেছিলেন তিনি। বেশিদিন এ অবস্থা থাকেনি। সেরেনা ফিরেছেন স্বরূপে টেনিসকে ভালোবেসে। ফিরে এসেই একে একে জিততে লাগলেন টেনিসের সব অস্পৃশ্য রেকর্ড। অসংখ্য শিরোপা। তারপর একদিন তিনি স্বপ্ন দেখতে লাগলেন স্টেফিগ্রাফের পাশে স্থান পাবার। সেই স্বপ্ন এখন বাস্তব। এখানে থেমে গেলেও সেরেনা উইলিয়ামসকে সর্বকালের সেরা মেনে নিবেন অনেকে। যেমন মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা এরই মধ্যে সেরেনাকে একজন দিগ্বিজয়ী হিসেবে অভিনন্দন জানিয়েছেন। কিম ক্লাইস্টার্স থেকে শুরু করে প্রতিপক্ষ অ্যাঞ্জেলিক কারবারও সেরেনাকে কিংবদন্তি হিসেবে স্বীকার করে নিয়েছেন। আর সেরেনা উইলিয়ামস কী বলছেন! ‘হে ঈশ্বর! ২২ সংখ্যাটা সম্পর্কে আমি অনেক কিছুই শিখলাম। আমি শিখেছি, কীভাবে নিজেকে সব বিতর্ক থেকে দূরে রাখতে হয়। ’ সেরেনা নাকি বেশ কয়েকটা রাত নির্ঘুম কাটিয়েছেন। এবারেও কী ব্যর্থ হতে হবে! তবে সেরেনা অবশেষে সেই লক্ষ্য স্পর্শ করেছেন। তবে এজন্য সেরেনাকে কঠিন চাপের মুখোমুখি হতে হয়েছে। সেরেনা বলছেন, ‘আমি বেশ কয়েকটা পরাজয়ের পর অনেক চাপে ছিলাম। নিজের উপরই অনেক চাপ দিয়েছিলাম। ’ গত বছরও উইম্বলডন জিতেছিলেন সেরেনা। উৎসব করেছিলেন অনেক। এবারেও উৎসব করবেন। তবে এর মধ্যে থাকবে ভবিষ্যতে আরও ভালো কিছু করার স্বপ্নও। কোচ প্যাট্রিক যেমন বলছেন, ‘সেরেনা এমন একজনের নাম যে কেবল রেকর্ড ভাঙতেই চায়। ’ প্যাট্রিকের সঙ্গেই আরও অনেকদূর যেতে চান সেরেনা। মার্গারেট কোর্টের ২৪ গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা জয়ের রেকর্ডটাও এখন আর নিরাপদ নেই। ৩৪ বছরের সেরেনা এই রেকর্ডটা আর কয়েক মাসের মধ্যেই হয়তো ভেঙে দিবেন! কেবল তো এককেই নয়। সেরেনা তার বড় বোন ভেনাসকে নিয়ে দ্বৈতেও জিতে চলেছেন একের পর এক। দ্বৈতের ফাইনালে উইলিয়ামস বোনেরা বাবোস/সভেদোভা জুটিকে ৬-৩, ৬-৪ গেমে হারিয়েছেন। এই নিয়ে গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টে ১৪টা ডাবলস জিতলেন উইলিয়ামস বোনেরা।

মেয়েদের টেনিসে সর্বকালের সেরা তারকা হিসেবে এরই মধ্যে বিতর্কে চলে এসেছেন সেরেনা উইলিয়ামস। অনেক সাবেক তারকাই এখন সেরেনাকে সেরা বলে মেনে নিচ্ছেন। তবে সর্বকালের সেরা হতে এখনো কয়েকটা ধাপ পাড়ি দিতে হবে সেরেনা উইলিয়ামসকে। আরও অন্তত দুটো গ্র্যান্ডস্লাম জিততে হবে। ৩৫ ছুঁই ছুঁই সেরেনা কী তা পারবেন!

এই পাতার আরো খবর
up-arrow