Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১৭
ইউসেবিও থেকে রোনালদো
ইউসেবিও থেকে রোনালদো
ইউসেবিও - ফিগো - রোনালদো

ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম দল হিসেবে পর্তুগিজরা স্বীকৃত। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ দশে তাদের নাম প্রায় চিরস্থায়ী। কিন্তু তারপরও আন্তর্জাতিক ফুটবলে দলটাও অর্জন প্রায় শূন্য ছিল এতদিন। এই ধারায় পরিবর্তন এনেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে পর্তুগালের সফলতার পেছনের কাহিনীটা অনেক লম্বা। ফুটবল ইতিহাস যে কজন কিংবদন্তির দেখা পেয়েছে পর্তুগালই উপহার দিয়েছে বেশ কয়েকজনকে। ইউসেবিও দ্য সিলভা ফেরেরা এর মধ্যে অন্যতম। ১৯৪২ সালের ২৫ জানুয়ারি তার জন্ম। পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকার জার্সিতে অনেক কিছুই জিতেছেন তিনি। জিতেছেন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগও (ইউরোপিয়ান কাপ, ১৯৬১-৬২)। তবে পর্তুগালের জার্সিতে ১৯৬৬ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান অর্জনই ইউসেবিওর সেরা অর্জন। দেশের হয়ে এর বেশি যেতে পারেননি এই কিংবদন্তি। সেবার তিনি বিশ্বকাপের গোল্ডেন বুটও জিতেছিলেন।

 

ইউসেবিওর পর দীর্ঘদিন পর্তুগিজ ফুটবল ছিল তারকাশূন্য। তবে ইউসেবিও ফুটবল ছেড়ে দেওয়ার সময়টাতেই জন্ম লুইস ফিগোর। একদিন তিনিই হয়ে ওঠেন আধুনিক ফুটবলের অন্যতম তারকা। পর্তুগালকে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সফলতা এনে দেওয়ার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের এই মহাতারকা। কিন্তু ২০০৪ সালের উয়েফা ইউরোপিয়ান কাপে রানার্সআপ আর ২০০৬ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলাই ফিগোর ক্যারিয়ারের সেরা অর্জন হয়ে থাকে। অবশ্য তিনি ১৯৯১ সালে পর্তুগালকে ফিফা যুব বিশ্বকাপের ট্রফি উপহার দিয়েছিলেন। বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ আর ইন্টার মিলানের হয়ে অসংখ্য ট্রফি জিতলেও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ইউসেবিওর মতোই ব্যর্থ থেকে যান লুইস ফিগো। তবে তিনি যে গোল্ডেন জেনারেশনের সূচনা করেছিলেন তা ধরে রাখেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তিনিই পর্তুগালকে উপহার দেন প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফি।

 

২০০৪ সালের ইউরো কাপ ফাইনালে ফিগোর সঙ্গী ছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সেবার ব্যর্থ হলেও তিনিই বর্তমানে বদলে দিয়েছেন পর্তুগিজদের ফুটবলীয় ইতিহাসের গতিধারা। উয়েফা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ফ্রান্সকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে পর্তুগাল। রোনালদো পূর্ণাঙ্গ ম্যাচটা খেলতে না পারলেও এ জয়ে সিংহ ভাগ ভূমিকা তারই। টুর্নামেন্টে তিনি কেবল তিনটা গোলই করেননি বরং প্রতিটা জয়েই ছিল তার অবদান। রোনালদোর এ অর্জন পর্তুগালের অতীত ব্যর্থতাগুলোকে ভুলিয়ে দিয়েছে। পর্তুগালকে তুলে দিয়েছে ফুটবলের এলিট ক্লাবে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যে ধারার সূচনা করলেন তা সহসাই থেমে যাবে বলে মনে হয় না। ম্যানইউ আর রিয়াল মাদ্রিদে যে সফলতা পেয়েছেন এ তারকা এবার তা আন্তর্জাতিক ফুটবলেও আসতে শুরু করেছে। কে জানে, আগামী বিশ্বকাপে সম্ভবত শীর্ষ ফেবারিট থাকবে পর্তুগিজরাই!

up-arrow