Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩২
ফিটনেস নিয়ে সন্তুষ্ট নন সেইন্টফিন্ট
ক্রীড়া প্রতিবেদক
ফিটনেস নিয়ে সন্তুষ্ট নন সেইন্টফিন্ট
সেইন্টফিন্টের পাঁচ দিনের প্রাথমিক অনুশীলন শেষে মাঠ ছাড়ছেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

আষাঢ়ের বৃষ্টির কোনো টাইম টেবিল নেই। হঠাৎ ঝমঝম ধারায় ঝরছে, আবার ফকফকা আকাশ। বৃষ্টির কোনো লেশ নেই। পরমুহূর্তেই অন্ধকার করে ধুম বৃষ্টি। কাল যেমন সারা দিন বৃষ্টি হয়েছে। কখনো মুষলধারায়, কখনো আবার থেমে থেমে। এমন ঘোর বর্ষাতেই টম সেইন্ট ফিট পঞ্চম দিন অনুশীলন করালেন মামুনুলদের। পাঁচ দিনের অনুশীলন শেষে শিষ্যদের পারফরম্যান্সে খুশি। তবে ফিটনেসে সন্তুষ্ট নন। অবশ্য ৪-৫ দিনের অনুশীলনে শতভাগ ফিট হবেন না ফুটবলাররা, সেটাও ভালো করে জানেন। গতকাল সকালে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ‘উইথ বল’ প্র্যাকটিস করান। সেখানে তিনি পাসিং ফুটবল খেলান। তার কৌশল বুঝাতে তিনি নিজেও মামুনুলদের সঙ্গে অনুশীলন করেন। কেউ যদি পাসিং মিস করেন, তাহলে দৌড়ে তাকে বকা দেন এবং এরপর বুঝিয়ে দেন কীভাবে আক্রমণ শানাতে পাসিং ফুটবল খেলতে হয়। গত পাঁচদিন ফুটবলারদের ফিটনেস ট্রেনিং করানোর পাশাপাশি পাসিং, হেডিং, সব কিছুই করিয়েছেন। পাঁচদিনের অনুশীলনে ফুটবলারদের পারফরম্যান্স নিয়ে সন্তুষ্ট কোচ কিন্তু ফিটনেস নিয়ে আরও কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, ‘প্রথম দিন থেকেই ফিটনেস ট্রেনিং করাচ্ছি। সঙ্গে অন্য বিষয়গুলো নিয়েও কাজ করছি। ফুটবলাররা ভালোই করছেন অনুশীলনে। তবে ফিটনেস কম। অবশ্য ভুটান ম্যাচের আগে ফুটবলাররা ফিট হয়ে যাবেন বলেই বিশ্বাস। একজন ফুটবলারকে ফিট হতে হলে কমপক্ষে ৫-৬ সপ্তাহ সময় লাগে। ’ গত কয়েক বছরের মধ্যে বাংলাদেশ ফুটবলের সবচেয়ে হাইপ্রোফাইল কোচ টম সেইন্ট ফিট। ঢাকায় পা রেখেই মামুনুলদের ধারণা দিয়েছেন, আক্রমণাত্মক ফুটবলই তার দর্শন। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে গতির বিকল্প নেই। তবে সাফল্য পেতে সম্মিলিতভাবেই খেলতে হবে বলেন, ‘ফুটবল সবসময়ই দলীয় খেলা। অন্য খেলাগুলোতে ব্যক্তিগত নৈপুণ্য সহায়ক হলেও ফুটবলে সম্ভব নয়।

up-arrow