Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩৪
মাশরাফির বিশ্বাস ইংল্যান্ড আসবে
ক্রীড়া প্রতিবেদক
মাশরাফির বিশ্বাস ইংল্যান্ড আসবে

শুরু হয়ে গেল জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্প। কিন্তু জাতীয় দলের কোনো কোচ নেই। জাতীয় দলের ট্রেনার মারিও ভিল্লা ভারায়েনের থাকার কথা থাকলেও গুলশানে জঙ্গি হামলার কারণে আসতে সময় নিচ্ছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আশা করছেন, দ্রুতই ভিল্লা ভারায়েন বাংলাদেশে আসবেন। মূল কোচ চন্ডিকা হাতুরাসিংহে ও স্পিন কোচ রুয়ান কালপাগের সঙ্গে আগষ্টের প্রথম সপ্তাহে ফিরতে পারেন ট্রেনার। তবে এখন স্থানীয় কোচের অধীনেই চলতে থাকবে বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্প। ভিল্লা ভারায়েনের অনুপস্থিতিতে মাশরাফিদের ট্রেনার হিসেবে কাজ করছেন ইফতিখারুল ইসলাম।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে যে সিরিজের জন্য জাতীয় দল কন্ডিশনিং ক্যাম্প করছে সেই সিরিজটি হবে তো! জঙ্গি হামলার পর যদিও ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড দোটানার মধ্যে রয়েছে। তবে জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার বিশ্বাস ইংল্যান্ড বাংলাদেশ সফরে আসবে। ম্যাশ বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ শুধু বাংলাদেশের ক্রিকেটারদেরই নয়, সব দেশের ক্রিকেটারদেরই সম্মান করে, সব দলের খেলা দেখে। আমি মনে করি এবারও কোনো সমস্যা হবে না। ক্রিকেটের এই সংস্কৃতি ধরে রাখতেই ইংল্যান্ড দলের আসা উচিত। তাদের নিশ্চয়ই সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হবে। ’

৩০ সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে আসার কথা ইংল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দলের। মাশরাফিদের সঙ্গে তারা দুই টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলবে। গুলশানে জঙ্গি হামলার কারণে পরিস্থিতি অন্যরকম হলেও নড়াইল এক্সপ্রেস আশাবাদী, ইংল্যান্ডের আসার ব্যাপারে। মাশরাফি বলেন, ‘আমি খুবই আশাবাদী ইংল্যান্ড সিরিজ হবে। সমর্থকরাও অনেক দিন ধরে এই সিরিজটির জন্য অপেক্ষা করছে। ’

কন্ডিশনিং ক্যাম্পে দলের মূল ট্রেনার না থাকার কারণে যাতে কোনো রকম ঢিলেমি না চলে আসে এজন্য সিনিয়র ক্রিকেটারদের বড় দায়িত্ব পালন করতে হবে বলে মনে করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনেক কিছু করার আছে। যেমন মুশফিক, রিয়াদ, তামিম আছেন। সিনিয়র যারা বেশ কিছুদিন পরে আবার দলে ফিরেছে, শাহরিয়ার নাফীস, রকিবুল ওরা সবাই ফিট। ওদেরকে আলাদা করে কিছু বলার নেই। তবে তরুণরা ওদের গাইডলাইন নিক। ’

মারিও ভিল্লা ভারায়েন না থাকলেও ক্যাম্পে সমস্যা হওয়ার কথা নয় বলে মনে করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক, মারিও ছাড়া আমরা অভ্যস্ত নই। তবে ইফতি আছে। সে অনেক দিন আমাদের সঙ্গে আছে। তাকে নির্দেশনা দেওয়া আছে। এছাড়া খেলোয়াড়রা নিজেদের কাজটা নিজেরা বুঝে নিয়েছে। এখন সবাই জানে নিজেদের কাজটা নিজেরই করতে হবে। ’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সবাই জানি, এক দেড় মাস গ্যাপ থাকলেই আনফিট হয়ে যাব। তাই ফিটনেস ধরে রাখতে নিজের যত্ন নিজেরাই নেওয়া শেখার জন্য এটি একটি দারুণ সুযোগ। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow