Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৩০
আত্মবিশ্বাসী নাসির
ক্রীড়া প্রতিবেদক
আত্মবিশ্বাসী নাসির

এক সময় ভাবা হতো ব্যাটিং অর্ডারের সাত আট নম্বরে নাসির হোসেন বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান। ‘দ্য ফিনিশার’ নামেই তার পরিচিতি আছে। বল হাতেও দারুণ ব্রেক থ্রু এনে দিতে পারেন। কিন্তু সেই নাসির এখন জাতীয় দলে অনিয়মিত। জাতীয় দলের জার্সিতে সব শেষ টেস্ট খেলেছেন ১৩ মাস আগে। ২০১৫ সালের আগস্টে মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্টের পর আর খেলতে পারেননি। ওই ম্যাচটিও তো পুরো খেলতে পারেননি নাসির। প্রথম দিনের পর বৃষ্টির কারণে আর খেলাই হয়নি। অবশ্য এর পর বাংলাদেশও আর কোনো টেস্ট খেলেনি।

সব শেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৫ সালের নভেম্বরে। এরপর বাংলাদেশ তিন ক্রিকেট পরাশক্তি পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে সিরিজে হারিয়ে র্যাঙ্কিংয়ের সাত নম্বরে উঠেছে। কিন্তু নাসির ছিলেন দর্শক হয়ে। টি-২০ বিশ্বকাপে দলের সঙ্গে ভারত ঘুরলেও নাসির ছিলেন উপেক্ষিত। নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচটি ছাড়া আর কোনো ম্যাচে সুযোগ পাননি। এমনকি তাসকিন ও সানি সাময়িক নিষিদ্ধ হওয়ার পরও নাসিরকে একাদশে নেওয়া হয়নি।

তবে উপেক্ষার জবাবটা রংপুরের এই তারকা অলরাউন্ডার দিয়েছেন ঘরোয়া লিগেই। ব্যাট হাতে করেছেন ১৬ ম্যাচে ৭৫.৪২ গড়ে করেছেন ৫২৮ রান এবং বল হাতে নিয়েছেন ১৪ উইকেট। প্রিমিয়ার লিগেই দেখা গেছে আগের সেই নাসিরকে। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য প্রাথমিক দলে আবার ডাক পেয়েছেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজেও নাসিরকে দেখা যাবে কিনা! নাসির বলেন, ‘একাদশে থাকা না থাকার বিষয়টা ম্যানেজমেন্টের। তবে আমি আমার চেষ্টার কমতি করছি না। অবশ্যই আমার চেষ্টা থাকবে টি-২০, ওয়ানডে ও টেস্টে ধারাবাহিক হওয়া বা ভালো কিছু করেই নিয়মিত হওয়া। ’

বাংলাদেশ অনেক দিন থেকে টেস্ট খেলছে না। দীর্ঘ বিরতির পর টেস্ট খেলাটা কতটা কঠিন বাংলাদেশের জন্য? নাসির বলেন, ‘টেস্ট খেলা অনেক কঠিন। ১৪ মাস পর খেলা। সত্যি বলতে কী আমি শেষ কবে  টেস্ট ক্রিকেট খেলেছি আমার মনে  নেই। অবশ্যই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে  টেস্ট খেলা কঠিন হবে। আমরা টেস্ট যত বেশি খেলব ভালো করার সুযোগ ততোই থাকবে। ’ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কেমন করবে বাংলাদেশ? অনুশীলন কেমন হচ্ছে? নাসির বলেন, ‘আমি মনে করি ম্যাচ  খেলাই বড় অনুশীলন। অনেক দিন ধরেই আমরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ খেলছি না। আমাদের চেষ্টা থাকবে ওখান থেকে বেরিয়ে আসার। আমি যেটা জানি সিরিজ শুরুর আগে আমাদের নিজেদের মধ্যে ৭-৮টি অনুশীলন ম্যাচ খেলা হবে। ’ প্রিমিয়ার লিগের গত আসরে ভালো করায় নাসিরের আত্মবিশ্বাস বেড়ে গেছে। এখন যেকোনো পজিশনে ভালো করার ব্যাপারে দৃঢ় প্রত্যয়ী তিনি। নাসির বলেন, ‘আপনি যেখানেই রান করেন তা আত্মবিশ্বাস দেবে। প্রিমিয়ার লিগে আমি এক-দুটি ম্যাচ ছাড়া বাকি ম্যাচগুলোতে  বেশ ভালোই করেছি। আমি যেখানে ব্যাটিং করি ওই সময় খুব বেশি ওভার থাকে না। ১৫ থেকে ২০ ওভার থাকে। তারপরও আমি চেষ্টা করেছি সেরাটা করার। প্রিমিয়ার লিগে নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে আমি খুশি। ’ গতবছর ওয়ানডেতে দুর্দান্ত দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু তারপরেও ১০ মাস পর ওয়ানডে খেলতে নামাটাও কতটা কঠিন? নাসির বলেন, ‘আমাদের টার্গেট থাকবে সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখা। হয়তো ১০ মাস ধরে আমরা ওয়ানডে খেলি না। কিন্তু তারপরও আমার মনে হয় খুব বেশি সমস্যা হবে না। কারণ সিরিজ শুরুর আগে আমরা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলব। ’

 

up-arrow