Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:২৪
মেসির গোলে আর্জেন্টিনার স্বস্তি
বাছাই পর্ব
ক্রীড়া প্রতিবেদক
মেসির গোলে আর্জেন্টিনার স্বস্তি
অবসর ভেঙে ফিরলেন ফুটবল জাদুকর মেসি। ফিরেই গোল করলেন এবং জেতালেন আর্জেন্টিনাকে —এএফপি

বিশ্বকাপ ফুটবল এবং দুই দুটি কোপা আমেরিকা কাপের ফাইনাল খেলেছেন লিওনেল মেসি। কিন্তু অধরা শিরোপার দেখা পাননি। জন্মভূমি আর্জেন্টিনাকে উপহার দিতে পারেননি শিরোপা। কোপা আমেরিকার শতবর্ষীয় আসরের ফাইনালে চিলির কাছে হেরে দুঃখে, কষ্টে ও বেদনায় বিদায় জানান আর্জেন্টিনাকে। এক বুক কষ্ট নিয়ে জানিয়ে দেন আর্জেন্টিনার পক্ষে আর কখনো খেলবেন না। মেসির বিদায়কে কেউ মেনে নিতে পারেননি। তাকে ফিরে আসার জন্য অনুরোধ জানায় গোটা আর্জেন্টিনা। কিন্তু মন গলেনি তাতে । অবশেষে নতুন কোচ এডওয়ার্ডো বাওজার দায়িত্ব নিয়েই ফিরিয়ে আনেন মেসিকে। ফিরেই চমকে দিলেন ফুটবল বিশ্বকে। ল্যাটিন আমেরিকান অঞ্চলের বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইপর্বে উরুগুয়ের বিপক্ষে অসাধারণ এক গোল করেন মেসি। তার একমাত্র গোলেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা। এই জয়ে ৭ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে আর্জেন্টিনা। লুইস সুয়ারেজের উরুগুয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে। অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের পয়েন্ট ১২ এবং অবস্থান পঞ্চম।

বাওজার দায়িত্ব নেন যখন দলের সেরা ফুটবলার মেসি অবসরে। আলবিসেলিস্তাদের পুরনো ফর্মে ফেরাতে যখন গলদগর্ম, তখনই তিনি রাজি করান মেসিকে। দেশের টানে, জনগণের ভালোবাসার টানে ফিরে আসেন এবং শুক্রবার বুয়েন্স আয়ার্সে খেলতে নামেন। মেসি খেলতে নামেন অভিজ্ঞ সার্জিও আগুইরো, জ্যাভিয়ার পাস্তেরো ও গঞ্জালো হিগুইয়েন ছাড়া। ফলে আক্রমণভাগের পুরো দায়িত্বটাই ছিল তার কাঁধে। অবশ্য নতুন খেলতে নামা পাওলো দিবালা দুর্দান্ত খেলেছেন। জুভেন্টাসের তরুণ স্ট্রাইকার গোলের সুযোগও তৈরি করেছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য সঙ্গী হওয়ায় গোল পাননি। ৩২ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে তার জোরালো ভলি উরুগুয়ের গোলরক্ষককে পরাস্ত করলেও সাইডবারে লেগে ফিরে আসে। ৪০ মিনিটে মেসি সুযোগ তৈরি করেন। কিন্তু তাড়াহুড়া করতে গিয়ে বারের ওপর দিয়ে মারেন। অবশেষে সব উৎকণ্ঠাকে জয় করেন ৪২ মিনিটে। প্রতিপক্ষ উরুগুয়ের খেলোয়াড়দের ফাঁকি দিয়ে বাম পায়ে দারুণ এক ভলিতে শট নেন এবং সেটা উরুগুয়ের রক্ষণভাগের একজনের গায়ে লেগে জায়গা নেয় জালে (১-০)। তিন মিনিট পর সমতা আনার সুযোগ পেয়েছিলেন মেসির বার্সেলোনার সহযোদ্ধা লুইস সুয়ারেজ। ডি বক্সে বল পেলেও শট নিতে দেরি করলে বল বাইরে চলে যায়। ফলে সমতা আনতে পারেনি। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে আর্জেন্টিনা ১০ জনে পরিণত হয়। দুই হলুদ কার্ড দেখে মাঠ থেকে বহিষ্কার হন পাওলো দিবালা।

প্রথমার্ধে ওই এক গোলই হয়। দ্বিতীয়ার্ধে আর গোল হয়নি। তবে ৫৪ মিনিটে গোল সংখ্যা দ্বিগুণ হতে পারত। ডি বক্সের মাথা থেকে মেসির বাঁকানো শট কোনোমতে কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন গোলরক্ষক। এরপর অবশ্য দুই দলই আক্রমণ পাল্টা-আক্রমণ করে খেলে। কিন্তু গোল আর হয়নি। ফলে মেসির গোলেই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow