Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০১
কৃষ্ণারা মাসিক ভাতা পাবেন
ক্রীড়া প্রতিবেদক
কৃষ্ণারা মাসিক ভাতা পাবেন

বাংলাদেশের মহিলা ফুটবল ইতিহাসে এর চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স নেই। শুধু ভালো বললে কমই হবে, এর চেয়ে প্রেরণাদায়ক ফলও আর নেই।

ছেলেরা হারতে হারতে যখন রসাতলে, তখন এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে ইরান, চাইনিজ তাইপের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জায়গা নিয়েছে চূড়ান্ত পর্বে। কৃষ্ণা রানী, সানজিদারা এখন এশিয়ার সেরা ৮ দলের একটির সদস্য। আগামী বছর চীনে চূড়ান্ত পর্ব। তার জন্য লম্বা প্রস্তুতির পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২৩ সদস্যের দলটিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া ছাড়াও মাসিক ভাতা দেবে বাফুফে। দলটিকে পৃষ্ঠপোষকতা করবে মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানি ইউনিলিভার বাংলাদেশ। চূড়ান্ত পর্বে ভালো পারফরম্যান্সের জন্য চীন, জাপানের মতো শক্তিশালী দলগুলোর বিপক্ষে ৫-৬টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলানোর পরিকল্পনাও রয়েছে বাফুফের।          

মাসের শুরুতে ঢাকায় ৬ জাতির চ্যাম্পিয়নশিপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী ইরানকে ৩-০, পরের ম্যাচে সিঙ্গাপুরকে ৫-০, তৃতীয় ম্যাচে কিরগিজস্তানকে ১০-০, চতুর্থ ম্যাচে চাইনিজ তাইপেকে ৪-২ এবং সর্বশেষ সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ৪-০ গোলে হারিয়ে টানা পাঁচ জয় তুলে নেন কৃষ্ণারা। পাঁচ ম্যাচে করে ২৬ গোল। চ্যাম্পিয়ন হয়ে বাংলাদেশ চূড়ান্ত পর্বে খেলবে চীন, জাপান, থাইল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, উত্তর কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও লাওসের সঙ্গে। চূড়ান্ত পর্বের শীর্ষ তিন দল খেলবে ২০১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল। প্রতিপক্ষ দলগুলো যথেষ্ট পরিণত, পরিপক্ব ও শক্তিশালী বলে বাফুফে এখন থেকেই প্রশিক্ষণের পরিকল্পনা করছে। গতকাল নির্বাহী কমিটির সভা শেষে এমন পরিকল্পনার কথা জানায় বাফুফে। মেয়েদের পাওয়ার, স্ট্রেন্থ ও ফিটনেস বাড়াতে এবং টেকনিক্যাল দিকগুলোতে কাজ করার জন্য একজন ট্রেনার নিয়োগ দেবে বাফুফে। যিনি একই সঙ্গে পুষ্টিবিদেরও কাজ করবেন। একজন ফিজিও নিয়োগ দেবে বাফুফে। ফিজিও বিদেশি হতে পারেন। এই এক বছর মেয়েদের থাকা-খাওয়া ও পোশাকের যাবতীয় ব্যয় বহন করবে বাফুফে।

নারী ফুটবলারদের অনেকেই পড়াশোনা করেন। পড়াশোনায় যাতে ব্যাঘাত না ঘটে সে জন্য বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও অন্যান্য বিষয় পড়াতে চারজন শিক্ষক থাকবে ক্যাম্পে। অভিভাবকদের অভাব যাতে বোধ না করেন সে জন্য দেড় মাস অন্তর অন্তর ‘প্যারেন্টস ডে’ পালন করা হবে। এ প্রসঙ্গে বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমরা যে কোনো মূল্যে এ পরিকল্পনা চালিয়ে যাব। মেয়েদের অর্জন আমাদের কাছে অনেক বড়। আশা করি তারা আরও উন্নতি করবে। তাদের নিয়ে দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিতে পারব বলে মনে করি। ’ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাফুফে সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ, বাদল রায়, মহিউদ্দিন মহি, তাবিথ আওয়াল ও মাহফুজা আক্তার কিরণ।

up-arrow