Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০৬
কোথায় গেল উত্তেজনা কোথায় সেই উৎসব
মোহামেডান-আবাহনীর মর্যাদার লড়াই আজ
ক্রীড়া প্রতিবেদক
কোথায় গেল উত্তেজনা কোথায় সেই উৎসব

ফুটবলে মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচ মানেই দেশ জুড়ে উত্তেজনা। কে জিতবে সাতদিন আগে থেকেই দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক শুরু হয়ে যেত।

ধরা হতো হাজার হাজার টাকার বাজি। পতাকা উড়ানো নিয়ে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যেত। ক্লাবের সামনে সমর্থকদের ভিড় উপচে পড়ত। প্রথম বিভাগ লিগে অভিষেক ঘটার পর মোহামেডানের বিপক্ষে আবাহনী প্রথম ম্যাচ খেলে ১৯৭৩ সালে। ম্যাচে ২-০ গোলে জয়লাভ করে আবাহনী। তখনো দুই দলের ম্যাচের গুরুত্ব ছিল না। ১৯৭৫ সাল থেকে লড়াইয়ে রূপ নেয় মর্যাদায়। ইংলিশ ফুটবল লিগে ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুলকে যেমনভাবে বলা হয় চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই। তেমনভাবে খ্যাতি পেয়ে যায় মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচ। বার্সা ও রিয়ালের খেলা ঘিরে স্পেন যেভাবে কাঁপে, তেমনিভাবে বাংলাদেশ কাঁপতো মোহামেডান-আবাহনীকে নিয়ে। টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ত। বিশ্বকাপ এলে সারা দেশে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার পতাকা যেভাবে ভরে যায়। লিগে মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচ ঘিরে তাই হতো।

কোথায় গেল সেই উত্তেজনা বা উৎসব। বর্তমান প্রজন্মকে বিশ্বাস করানো মুশকিল মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচ ঘিরে কী অবস্থা হতো। বিশ্বাস করবেই বা কিভাবে দুই প্রধানের লড়াইয়ে সেই জৌলসতো হারিয়ে গেছে। আজ পেশাদার ফুটবল লিগে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দল মুখোমুখি হচ্ছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে। আজ ম্যাচ অথচ গতকাল দুই দলের বেশ কজন সাবেক ফুটবলারকে ফোন করলে তারা বিস্ময় কণ্ঠে বলেন, তাই নাকি বুধবার আবাহনী-মোহামেডানের খেলা? দুই দলের সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড আছে কায়সার হামিদের। তিনিও জানতেন না মোহামেডান-আবাহনীর ম্যাচের কথা। আক্ষেপের সুরে তিনি জানালেন, এতেই বুঝা যায় ফুটবলের কি দুর্দশা। আগে তো সাতদিন আগে থেকেই উত্তেজনা শুরু হয়ে যেত। আমাদের প্রস্তুতি থাকত অন্যরকম। এখন আমিই জানি না। শেখ মো. আসলাম বলেন, বাফুফের নির্বাহী কমিটিতে থাকার পর আমিও জানতাম না দুই প্রধানের ম্যাচের কথা। সন্ধ্যায় শুনলাম বুধবার আবাহনী-মোহামেডানের লড়াইয়ের কথা। আরেক খ্যাতনামা ফুটবলার সৈয়দ রুম্মন বিন ওয়ালি সাব্বির ক্ষোভের সঙ্গে বললেন, যে চরম দশা দেশের ফুটবলের খবর নেওয়া ছেড়েই দিয়েছি। আপনার মুখেই শুনলাম বুধবার মোহামেডান-আবাহনী খেলতে নামছে। হতে পারে এটা আমার ব্যর্থতা। কিন্তু একবার  ভেবে দেখুন আমরাই যেখানে জানি না সেখানে সাধারণ দর্শকরা খবর রাখবে কীভাবে। ফুটবলে এমন পরিণতি হবে কেউ কি ভেবেছিল? যাক উত্তেজনা বা আলোচনা না হলেও আজ মোহামেডান-আবাহনী ম্যাচ। কালের বিবর্তনে ঘরোয়া আসরের গুরুত্ব কমে গেলেও দুই দলের লড়াই মানে মর্যাদার লড়াই। আলাদা একটা উত্তেজনা থাকবেই। শক্তি বা বিচারে আজকের ম্যাচে আবাহনীকে ফেবারিট বলতে হয়। ছয় ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১২। অন্যদিকে সমান সংখ্যক ম্যাচে মোহামেডানের অ্যাকাউন্টে জমা আছে ৫ পয়েন্ট।

up-arrow