Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১৩
তাসকিন সানি এখন মুক্ত
মেজবাহ্-উল-হক
তাসকিন সানি এখন মুক্ত

কোর্টনি ওয়ালশ কী যেন বলছেন, আর তাসকিন আহমেদ বার বার হাসছেন! স্বভাবসুলভ সেই মায়াবী হাসি! মাঝে মাঝে ওয়ালশের দিকে তাকাচ্ছেন। উইন্ডিজ কিংবদন্তির নির্দেশমতো আবার প্র্যাকটিসও করছেন।

অন্য ক্রিকেটাররা তখন অনুশীলনের অংশ হিসেবে ফুটবল খেলায় ব্যস্ত! আর তাসকিনকে নিয়ে মাঠের এক পাশে যেন আলাদা সেশন করছেন বোলিং কোচ। হাসলেও তাসকিনের মুখাবয়বে পরিষ্কার ছিল দুশ্চিন্তার ছাপ! এটা এক দিন আগের চিত্র।

কিন্তু এখন তাসকিন আহমেদ মুক্ত। টেনশন নেই। ভক্তরা তাকে নিয়ে মাতামাতি করছেন। খবর শোনার পরই জনস্রোতের মধ্যে মিরপুরে তাসকিনকে সংবর্ধনাও দেওয়া হয়েছে গত সন্ধ্যায়। তাসকিনের মুখে ছিল ভুবন ভোলানো সেই নিষ্পাপ হাসি। গতি তারকার এ হাসিটাই যেন গতকাল ভাইরাল হয়ে খুশির বার্তা নিয়ে গেল ১৬ কোটি মানুষের কাছে। আহা, কী খুশির খবর! গতিদানব এখন মুক্ত।

মুক্ত হয়েছেন আরেক বোলার স্পিনার আরাফাত সানিও। দুজনে একই সঙ্গে অভিযুক্ত হয়েছিলেন, টি-২০ বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে ম্যাচে। যে অভিযোগ নিয়ে ভক্তদের মনে ছিল অনেক প্রশ্ন! তারপর চেন্নাইয়ে পরীক্ষা দিয়ে দুজনই অকৃতকার্য! এরপর কত চড়াই-উতরাই পেরোতে হয়েছে দুই ক্রিকেটারকে। অবশেষে এলো সেই খুশির বার্তা।

গতকাল বিকালে আইসিসি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়ে দেয় তাসকিন ও আরাফাত সানির বোলিং অ্যাকশন বৈধ। বিজ্ঞপ্তিতে লেখা ছিল, ‘পুনর্মূল্যায়নের পর আইসিসি ঘোষণা করছে, বাংলাদেশের দুই বোলার তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানির বোলিং অ্যাকশন বৈধ। উভয় বোলারই এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বোলিং করতে পারবেন। ’ এর আগে অনেক বোলারের বোলিং অ্যাকশনই প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল। তারা বোলিং অ্যাকশন পরিবর্তন করে আবার ফিরেও এসেছেন। তবে তাদের বেশির ভাগ বোলারই নিজের আগের ফর্ম আর ফিরে পাননি। কিন্তু তাসকিন ও আরাফাতের ক্ষেত্রে সেই সমস্যা থাকছে না। কেননা দুই বোলারের সমস্যা ছিল খুবই সামান্য। তাদের বোলিং অ্যাকশনের তেমন পরিবর্তন করা হয়নি।

তাসকিনের সমস্যা ছিল শুধু ইয়র্কার দেওয়ার সময় তার কনুই ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে যেত। আর সানির বোলিং করার সময় তার ল্যান্ডিংয়ে সমস্যা ছিল। তাই সামান্য কিছুটা পরিবর্তন করেই কাজ হয়ে গেছে। সানিকে ল্যান্ডিংয়ের সমস্যাটা ঠিক করে দিয়েছেন ভারত থেকে আসা হাইপারফরম্যান্স টিমের খণ্ডকালীন কোচ ভেঙ্কটপতি রাজু। আর তাসকিনের বিষয়ে চিন্তার কোনো কারণই ছিল না।

শেষ পর্যন্ত দুই বোলারই মুক্ত হয়ে গেলেন। খুশির খবর শোনার পর তাসকিন তার অনুভূতি জানাতে গিয়ে বলেন, ‘কী ভালো লাগছে। এই খুশি ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। এখন অনেক ফ্রি ফ্রি লাগছে। আমি এমন একটা খবরের অপেক্ষায়ই ছিলাম। এ খবরের ওপরই নির্ভর করছিল আমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। অবশেষে মুক্তির আনন্দ। এখন আমি আফগানিস্তানের বিরুদ্ধেই খেলতে পারব— ভাবতেই ভীষণ ভালো লাগছে। ’

স্বস্তি প্রকাশ করে স্পিনার আরাফাত সানি বলেন, ‘খুব টেনশনে ছিলাম। এখন খুব ভালো লাগছে। এটা আসলে ভালোলাগার মতোই ব্যাপার। বড় একটা ঝামেলা থেকে বাঁচলাম। এখন খুব শান্তি লাগছে। এখন আমি জাতীয় লিগ নিয়ে ভাবছি। জাতীয় দলের ভাবনাটা আপাতত মাথায় নেই। ’

আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী বোলিং করার সময় হাত ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে গেলে তা অবৈধ। মাঠের আম্পায়ারের রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রথমে পরীক্ষা করানো হয় নির্দিষ্ট বোলারকে। পরীক্ষাগারে হাত ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে গেলে প্রথমে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করা হয়। তবে যে কোনো সময় পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সুযোগ থাকে। তবে অকৃতকার্য হয়ে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ। তাই তাসকিন বা আরাফাত সানির নেতিবাচক ফল হলে তাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার জন্য আরও এক বছর অপেক্ষা করতে হতো। সে কারণেই গতকাল দুই বোলারের বোলিং অ্যাকশনের ফল ‘ইতিবাচক’ হওয়ায় গোটা দেশে যেন আনন্দের বন্যা বইয়ে যায়। দুই বোলারই এখন মুক্ত।

তবে বোলিং অ্যাকশন বৈধ হলেও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে দেখা যাচ্ছে না আরাফাত সানিকে। কিন্তু দলে জায়গা পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ। কেননা তার জন্য আফগানদের বিরুদ্ধে প্রথম দুই ম্যাচের একজন কম রেখে দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। তাসকিন মুক্ত হওয়ায় ১৩ জনের দলটি এখন হয়ে যাবে ১৪ জনের। দলে আগে পেসার ছিলেন তিনজন, এখন হয়ে গেলেন চারজন।

এদিকে প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশকে ৬৬ রানে হারিয়ে যেন একটা বার্তাই দিয়েছে আফগানিস্তান! কিন্তু দিন শেষে সেই শঙ্কা উড়ে গেল খড়কুটোর মতো। তাসকিন ও সানির মুক্ত হওয়ার খবরের চেয়ে খুশির খবর আর কী আছে!

up-arrow