Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১৫
প্রাপ্তি ‘মোসাদ্দেকের ব্যাটিং’
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রাপ্তি ‘মোসাদ্দেকের ব্যাটিং’
৭৬ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত হাফ সেঞ্চুরির পর ব্যাট তুলে অভিবাদন জানাচ্ছে —বাংলাদেশ প্রতিদিন

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে গতকাল আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে যেন পাত্তাই পায়নি বিসিবি একাদশ। ৬৬ রানের ব্যবধানে পরাজয়।

বাংলাদেশের বোলাররা দাপুটে বোলিং করে আফগানদের মাত্র ২৩৩ রানে আটকে দিলেও ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৩৮.১ ওভারেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকদের ইনিংস। তবে এ ব্যর্থতার মাঝেও প্রাপ্তি মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ব্যাটিং। যেখানে গোটা দলের স্কোর ১৬৭ রান, সেখানে মোসাদ্দেক একাই করেছেন ৭৬। ৩টি ছক্কা ও ৫টি বাউন্ডারিতে সাজানো এক ইনিংস। দাপুটে ব্যাটিংয়ের কারণে ওয়ানডেতে তার অভিষেকের স্বপ্নটা যেন আরও রঙিন হয়ে গেল।

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম দুই ওয়ানডের জন্য ঘোষিত দলের মাত্র তিন সদস্য ছিলেন বিসিবি একাদশে— ইমরুল কায়েশ, সাব্বির রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন। অনুশীলন ম্যাচে ঠিকমতো অনুশীলন করতে পারেননি ইমরুল ও সাব্বির। ওপেন করতে নেমে ইমরুল আউট হয়েছেন মাত্র ৮ রান করে। ২ অঙ্কের কোঠা স্পর্শ করতে পারেননি মারকুটে ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমানও। তিনি করেছেন ৯ রান।

গতকাল আফগানদের স্পিনেই যেন দিশাহারা হয়ে যান বিসিবি একাদশের ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ২৪ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন আফগান স্পিনার মোহাম্মদ নবী। ২ উইকেট নিয়েছেন লেগ স্পিনার রশিদ খান। তারা বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের কাল ২২ গজে থিতুই হতে দেননি। মোসাদ্দেক ছাড়া আর মাত্র দুই ব্যাটসম্যান ২ অঙ্কের কোঠা ছুঁতে পেরেছিলেন। শুভাগত হোম ৩৪ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ১৫।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো বোলিং করেছেন আলাউদ্দীন বাবু। তিনি ৩২ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। ৩ উইকেট পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজও। তবে একটু বেশি রান দিয়েছেন। ২টি করে উইকেট পেয়েছেন পেসার আবু হায়দার রনি ও শুভাশিষ রায়।

আফগানিস্তানের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে হাফ সেঞ্চুরি করেছেন হাশমতুল্লাহ। ৯৬ বলে তিনি করেছেন ৬৯ রান। এ ছাড়া মিরওয়াইজ আশরাফ খেলেছেন অপরাজিত ৩২ রানের ইনিংস। ৩১ রান এসেছে অধিনায়ক আসগর স্তানিকজাইয়ের ব্যাট থেকে। ৩০ রান করেছেন রশিদ খান। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে এই হার জাতীয় দলের জন্য সতর্কবার্তাই বটে। তবে জিতেই স্বস্তি পাওয়ার উপায় নেই আফগানদের। কেননা মিরপুরের উইকেট আর ফতুল্লার উইকেট এক নয়। ফতুল্লায় স্পিনাররা বেশি সুবিধা পেয়েছেন, কিন্তু মিরপুরে দেখা যেতে পারে উল্টো চিত্র। বাংলাদেশ এখন পেসনির্ভর দল, তাই উইকেট নিশ্চয়ই স্পিন স্বর্গ বানাবে না। তার পরও আফগানদের বিরুদ্ধে বিসিবি একাদশের বাজে এই হারটা জাতীয় দলকে ভাবাবে বইকি!

up-arrow