Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩৭
শেখ রাসেল-আবাহনী কেউ জেতেনি
শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট
শেখ রাসেল-আবাহনী কেউ জেতেনি
আবাহনীর দুর্গে শেখ রাসেলের আক্রমণ —বাংলাদেশ প্রতিদিন

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় শীর্ষ দল আবাহনীর সঙ্গে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ড্র করতে হয়েছে শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রকে। গতকাল সন্ধ্যায় সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি শেষ হয়েছে ১-১ গোলে।

পয়েন্ট তালিকায় ব্যবধান অনেক হলেও ম্যাচের চিত্রপটে আবাহনী ও শেখ রাসেলের খেলায় কোনো ফারাক ছিল না। আবাহনীর সঙ্গে একইতালে লড়ে গেছে শেখ রাসেল। ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দারুণ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জর্জ কোটানের শিষ্যদের জবাব দিয়েছে শফিকুল হক মানিকের শিষ্যরা।

ম্যাচে আক্রমণের শুরুটা করেছিল আবাহনী। প্রথমার্ধের ১৫ মিনিটের মাথায় লি টাকের দুর্দান্ত ক্রসে পোস্টের ওপর দিয়ে হেড করেন সারা চামারা। এক মিনিট পর আবারও সেই লি টাকের বাড়ানো বলে ডি বক্সে বলে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন আবাহনীর চামারা ও হেমন্ত ভিনসেন্ট। প্রথমার্ধের ২৯ মিনিটে আবাহনীর জুয়েল রানার জোরালো শট দারুণ ক্ষিপ্রতায় ফিরিয়ে দেন শেখ রাসেলের গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন। ম্যাচের প্রথমার্ধে শেখ রাসেল কিছুটা নিষ্প্রভ থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে দারুণভাবে ম্যাচে ফিরে আসে। গোলশূন্যভাবে এগিয়ে চলা ম্যাচে দারুণ এক গোল করে ম্যাচে প্রাণ ফেরান শেখ রাসেলের শাখাওয়াত হোসেন রনি। দ্বিতীয়ার্ধের ২০ মিনিটে পল এমিলির বাড়িয়ে দেওয়া বলে আবাহনীর গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে জাল কাঁপাতে বেগ পেতে হয়নি রনিকে। এ অর্ধের ২৯ মিনিটে পল এমিলির জোরালো শট ফিরিয়ে দেন আবাহনীর গোলরক্ষক শহিদুল ইসলাম। ম্যাচে যখন শেখ রাসেলের জয় নিশ্চিত বলে ভাবা হচ্ছিল, তখন শেখ রাসেলের কিছুটা আয়েশি হয়ে পড়ার সুযোগে ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের ৩৯ মিনিটে ইমন মাহমুদের বাড়িয়ে দেওয়া বলে বক্সে ক্ষিপ্র এক শটে ম্যাচে সমতা আনেন আবাহনীর জুয়েল রানা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে না পারার জন্য রেফারিকে দুষলেন শেখ রাসেলের কোচ শফিকুল হক মানিক। তিনি দাবি করেন, রেফারি ম্যাচে নিশ্চিত একটি পেনাল্টি দেননি শেখ রাসেলের অনুকূলে। এ পেনাল্টি পেলে তার দল পূর্ণ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ত বলেও মন্তব্য করেন তিনি। দিনের প্রথম ম্যাচে শেখ জামাল ৫-৪ গোলে ব্রাদাস ইউনিয়নকে পরাজিত করে। এ জয়ে ৮ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট সংগ্রহ করে এককভাবে শীর্ষে অবস্থান করছে ধানমণ্ডিপাড়ার দলটি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow