Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩০
জাহিদের গোলে চট্টগ্রাম আবাহনীর জয়
শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

গোল পেতে পারতেন চট্টগ্রাম আবাহনীর লিওনেল সেইন্ট প্রিক্স। বক্সে গোলমুখে শট নেওয়ার আগে পড়ে যান প্রিক্স।

তার পা ছুঁয়ে বল যায় জাহিদ হোসেনের কাছে। আলতো ছোঁয়ায় বলকে জালে পাঠানোর সহজ সুযোগ হাতছাড়া হয়নি দেশের তারকা ফরোয়ার্ড জাহিদের। ম্যাচের একমাত্র এই গোলেই গতকাল সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে সকার ক্লাব ফেনীকে হারিয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে রহমতগঞ্জ ৩-২ গোলে হারিয়েছে টিম বিজেএমসিকে।

বিকাল সাড়ে ৪টায় শুরু হওয়া ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিল উত্তেজনাহীন। গোলের খেলা ফুটবলে গোল আদায়ে দুদলের স্ট্রাইকারদের ‘আলসেভাব’ ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রথমার্ধে চট্টগ্রাম আবাহনী যাও দুয়েকটি আক্রমণ করেছে, কিন্তু সকার ক্লাব ফেনী খাবি খেয়েছে মধ্যমাঠে। চট্টগ্রাম আবাহনীর ফরোয়ার্ড লিওনেল সেইন্ট প্রিক্স প্রথমার্ধের ২২, ৪১ ও ৪২ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু সকার ক্লাব ফেনীর ডিফেন্সকে ভেদ করতে পারেননি তিনি। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে চট্টগ্রাম আবাহনী। সকার ক্লাব ফেনীর গোলমুখে শানাতে থাকে একের পর এক আক্রমণ। ম্যাচের ৪৬ মিনিটে সকারের গোলরক্ষক ওসমান গণিকে একা পেয়েও পোস্টের বাইরে মারে আবাহনীর প্রিক্স। ৫০ মিনিটে বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়ে যান সকার ক্লাবের চমরিন রাখানি। ৫৬ মিনিটে সকারের ডিফেন্সে দৃঢ়তায় চট্টগ্রাম আবাহনীর আরেকটি আক্রমণ ব্যর্থ হয়। ম্যাচের ৬৫ মিনিটে আসে জয়সূচক গোলটি। ডি-বক্সে জটলায় বল পান লিওনেল সেইন্ট প্রিক্স। শট নিয়ে গিয়ে পড়ে যান তিনি। তবে তা পায়ে লেগে বল চলে যায় জাহিদ হোসাইনের কাছে। আলতো ছোঁয়ায় বল জালে জড়িয়ে চট্টগ্রাম আবাহনী শিবিরকে উল্লাসে মাতান জাহিদ। ম্যাচের বাকি সময়ে চট্টগ্রাম আবাহনী গোলের সংখ্যা বাড়িয়ে নিতে আক্রমণে ওঠেছে কয়েকবার। বিপরীতে সকার ক্লাব ফেনীর স্ট্রাইকাররা চেষ্টা করেছেন গোল শোধের। তবে ডিফেন্সের দৃঢ়তায় ম্যাচে গোলের সংখ্যা আর বাড়েনি।

up-arrow