Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২৪
‘ক্রিকেটেই মনোযোগ দিতে চাই’
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
‘ক্রিকেটেই মনোযোগ দিতে চাই’
মঈন আলী

ঢাকার বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না চট্টগ্রামেও। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচের আগে বারবার ঘুরে ফিরে আসছে দ্বিতীয় ম্যাচের সেই প্রসঙ্গ। গতকাল চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে ঘুরেফিরে এসেছে সেই বিতর্কের কথা। ইংলিশ অল-রাউন্ডার মঈন আলী বলেন, ‘দ্বিতীয় ম্যাচের ওই ঘটনা দু দলকে তাতিয়ে দেবে। ওই ঘটনার জের ধরে প্রত্যেক দলই আগের চেয়ে বেশি করে জিততে চাইবে। আমাদের অধিনায়কসহ কয়েকজন ক্রিকেটার মরিয়া হয়ে চাইবে ম্যাচটি জিততে। বাংলাদেশ দেশের মাটিতে টানা ছয়টি সিরিজ হারেনি। তাই তারাও ছেড়ে কথা বলবে না।’

দ্বিতীয় ম্যাচে জস বাটলার আউট হওয়ার পর টাইগারদের উদযাপন পছন্দ হয়নি ইংল্যান্ডের। এনিয়ে বাক্য বিনিময় হয়েছে বাংলাদেশি কয়েকজন ক্রিকেটারের সঙ্গে। ম্যাচ শেষে করমর্দনের সময় বেন স্টোকস ধাক্কা মারেন তামিমকে। ওই ঘটনা নিয়ে মঈন আলী বলেন, ‘ওই দিন আমাদের কয়েকজন উত্তেজিত হয়ে পড়েছিল। একই ভাবে বাংলাদেশেও কয়েকজন উত্তেজিত হয়ে পড়ে। একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে এরকম হতেই পারে। এখন ওই সব পেছনে ফেলে আমরা ক্রিকেটের দিকে মনোযোগ দিতে চাই।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের দিক থেকে যদি দেখি, গুরুত্বপূর্ণ উইকেট নিয়ে তারা এরকম উদযাপন করেছিল। উইকেট নিয়ে এরকম উদযাপন করা যায়। তবে তা প্রতিপক্ষকে সম্মান জানিয়ে। ভবিষ্যতে খেলার নিয়ম মেনে দু দলের সবাই ভালো আচরণ করবে আশা করি। পরে যেন পেছনে ফিরে বলতে পারি অসাধারণ সিরিজ ছিল এটি।’ গুলশান হামলার পর হুমকির মুখে পড়ে ইংল্যান্ড সফরকে ঘিরে। নিরাপত্তা দল ইতিবাচক রিপোর্ট দেওয়ার পর সফরে আসে ইংল্যান্ড। যদিও কয়েকজন খেলোয়াড় সফর থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন। সরকারের পক্ষ থেকে খেলোয়াড়দের ভিভিআইপি নিরাপত্তা দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়। মাঠে যাওয়া আসার পথে ছয় স্তরের নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে খেলোয়াড়দের। বাংলাদেশের নিরাপত্তা নিয়ে মঈন আলী বলেন, ‘এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা আমি কোথাও দেখিনি। আমার দেখা সেরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা এটি। এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা পেলে অন্যদেশও সফরে আসতে আগ্রহী হবে। আমি অন্য দলগুলোকে বাংলাদেশ সফরে আসতে উৎসাহিত করব।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow