Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:২৫
ফুটবলে ক্ষোভের আগুন
ক্রীড়া প্রতিবেদক

ফুটবলকে ঘিরে আর কি কিছু আশা করা যায়? এই প্রশ্নটা এখন সবারই। ব্যর্থতার বৃত্তে বন্দি থাকায় ক্রীড়ামোদীরা ক্ষুব্ধ।

জাতীয় দলের বেশ কজন সাবেক ফুটবলারের বক্তব্য ছিল দেশের ফুটবল লাইফ সাপোর্টে বেঁচে আছে। কিন্তু বাফুফের কর্মকর্তারা তা মানতে নারাজ। তাদের কথা খেলায় হারজিত থাকবেই। এনিয়ে এমন কোনো মন্তব্য করা ঠিক হবে না। যাতে খেলোয়াড়দের মনোবল ভেঙে যায়। আসলেও জয়-পরাজয় নিয়েই খেলা। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয় দলতো শুধু হেরেই যাচ্ছে। কোনো টুর্নামেন্টে ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না। মালদ্বীপের কাছে কিছুদিন আগে বিধ্বস্ত হয়েছে। এবার শোচনীয় হার মানলো ভুটানের কাছে। অথচ নব্বই দশক পর্যন্ত শুধু জাতীয় দল নয়, বিভিন্ন টুর্নামেন্টে মোহামেডান-আবাহনীর কাছে জিততে পারত না দুই দেশ। সত্যি বলতে কী মালদ্বীপ বা ভুটানের কাছে বাংলাদেশ হারবে এক সময় তা ভাবাই যেত না। মালদ্বীপের কাছে হারটা অবশ্য নতুন কিছু নয়। কিন্তু ভুটানের মতো দুর্বল দল বাংলাদেশকে হারায় কীভাবে? এশিয়ান কাপ প্রাক-বাছাইপর্বে ঢাকায় গোলশূন্য ড্র করে। সেক্ষেত্রে থিম্পুতে অন্তত ১-১ ড্র করতে পারলেই বাংলাদেশ বাছাইপর্বে চলে যেত। ১-৩ গোলে হারের পর এখন শুধু এশিয়ান বাছাইপর্ব নয় দীর্ঘ সময়ে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের বাইরে থাকতে হবে। ভুটানের কাছে শোচনীয় হার কোনোভাবে মানতে পারছে না ক্রীড়ামোদীরা। বাফুফের কর্মকর্তারাও এমন ব্যর্থতায় হতবাক। বর্তমান নির্বাহী কমিটির সদস্য বাফুফের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ বলেন, ‘নানা কাজে অনেক দিন ধরে আমার বাফুফে যাওয়া হয়নি। সুতরাং প্রস্তুতিটা কেমন ছিল তা আমার জানা নেই। তারপরও ভুটানের কাছে হার সত্যিই হতাশার। এখানে কোনো অজুহাত দাঁড় করান যাবে না। যাক হতাশা ঝেড়ে আমাদের নতুন করে ভাবতে হবে। ফুটবলের মতো জনপ্রিয় খেলা ধ্বংস হয়ে যাক এটা কারও কাম্য নয়। ’ বাফুফে সহ-সভাপতি সাবেক নন্দিত ফুটবলার বাদল বলেন, এমন ব্যর্থতায় কি বলব ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। হতাশায় শক্তি হারিয়ে ফেলেছি। আমরা যখন খেলতাম ম্যাচের শুরুতেই ভুটান অনুরোধ রাখত যেন কম গোল দিই। সেই ভুটানের কাছে হার তা কী মানা যায়?

জাতীয় দলের সাবেক খ্যাতনামা ফুটবলার কায়সার হামিদ বলেন, ‘ভুটানে হারের পর কি আর বলব। আমি বলব ব্যর্থতার দায়ভার স্বীকার করে বাফুফে কর্মকর্তাদের পদত্যাগ করা উচিত। ভুটানের কাছে হারের পর তাদের দিয়ে ফুটবলে উন্নয়ন ঘটবে এমন কেউই বিশ্বাস করবে না। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow