Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৯
তবু আলোচনায় মুস্তাফিজ
ক্রীড়া প্রতিবেদক
তবু আলোচনায় মুস্তাফিজ

স্বয়ং বিরাট কোহলি এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, পৃথিবীর কোনো বোলারের বল খেলতে সমস্যা হয় না। ব্যতিক্রম শুধু বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমান। ওর বল খেলতে গিয়ে সত্যিই তালগোল বাধিয়ে ফেলি। ওর একেকটা ডেলিভারি একেক রকম। বল বোঝা যায় না। ২০১৫ সালে ঢাকায় ভারতের বিপক্ষে ঐতিহাসিক ওয়ানডে সিরিজ জয়ের নায়ক মুস্তাফিজ। আইপিএলে প্রথমবারের মতো খেলতে নেমেই বাজিমাত করেন কাটারমাস্টার। সানরাইজ হায়দরাবাদের ট্রফি জয়ের পেছনে বড় ভূমিকা রাখেন মুস্তাফিজ। অথচ যাকে ঘিরে ভারতের ভয়, সেই মুস্তাফিজই ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া হায়দরাবাদ টেস্টে খেলবেন না। মুশফিকের নেতৃত্বে যে দল এখন হায়দরাবাদে অবস্থান করছে সেখানে কাটারমাস্টার নেই।

ইনজুরি তেমনভাবে না থাকার পরও নিজ থেকে খেলতে না চাওয়ায় মুস্তাফিজকে দলে রাখা হয়নি। রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টেস্ট, তাই গ্যালারিতে ভারতেরই সমর্থন থাকবে। কিন্তু হায়দরাবাদের নায়ক মুস্তাফিজ হায়দরাবাদে নেই বলে সেখানকার দর্শকও বিস্মিত। শুধু কি তাই, বাংলাদেশ দল পৌঁছানোর পরপরই ক্রিকেটাররা প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছেন মুস্তাফিজ আসেনি কেন? দলের সঙ্গী হওয়া বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার টেলিফোনে জানালেন, হায়দরাবাদে মুস্তাফিজ কতটা যে জনপ্রিয় এখানে প্রমাণ পাচ্ছি। হোটেল বা যেখানে যাচ্ছি সেখানে একই কথা মুস্তাফিজ নেই কেন। মুশফিক বা অন্য যে ক্রিকেটারের সঙ্গে ভিভিএস লক্ষ্মণের দেখা হয়েছে তখনই তিনি মুস্তাফিজের না আসার কারণ জানতে চাইলেন। আইপিএলে এক আসর খেলেই হায়দরাবাদবাসীর হৃদয়ে মুস্তাফিজ ঠাঁই পেয়ে গেছেন। কারও কারও মুখে এমনও কথা শোনা যাচ্ছে মুস্তাফিজ নেই বলে টেস্টই দেখবেন না।

ভারতীয় সাংবাদিকদের কাছে ঢাকায় বসে হাবিবুল বাশার বলেন, মুস্তাফিজকে পাওয়া গেলে খুব উপকার হতো। হায়দরাবাদ আইপিএলে এটিই তার হোমগ্রাউন্ড। মাঠ ও উইকেট সম্পর্কে তার অনেক কিছু জানা ছিল। ভারতীয় মিডিয়া উল্লেখ করেছে মুস্তাফিজ না থাকায় ভারত বাড়তি সুবিধা পাবে এটা ভাবা ঠিক হবে না। নিশ্চয়ই আসার আগে ওর কাছ থেকে টিপস নিয়ে এসেছে। যা কাজে লাগাতে চাইবে বাংলাদেশর পেসাররা। দলে নেই কিন্তু মুস্তাফিজের টিপস কাজে লেগে গেলে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

up-arrow