Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৫৬
সাকিব মিরাজদের কঠিন পরীক্ষা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
সাকিব মিরাজদের কঠিন পরীক্ষা
সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ

টেস্ট ক্রিকেটের বয়স ১৪০ বছর। ১৮৭৭ সালে মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে সূচিত টেস্ট ইতিহাস।

এরপর সময়ের চোরাস্রোতে টেস্ট খেলা হয়েছে তিন হাজারের ওপর। দশম টেস্ট খেলুড়ে দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অভিষেক হয় ২০০০ সালে। প্রতিপক্ষ ভারত। ভেন্যু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। ২০০০ সালের ১০ নভেম্বর বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সোনালি দিন। ওই দিনের পর থেকেই ক্রিকেটপ্রেমী বাঙালি ক্ষণ গুনতে শুরু করে ভারতের মাটিতে খেলার। অবশেষে সেই প্রতীক্ষার অবসান ঘটছে আজ। হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে যখন টস করতে নামবেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, সেই মুহূর্তটিও ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকবে। মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যাবে ছবিটি। ঐতিহাসিক টেস্ট। কিন্তু বাংলাদেশ ও টাইগার ক্রিকেটারদের কঠিন লড়াইয়ে পড়তে হবে কোনো সন্দেহ নেই। বিশেষ করে বাংলাদেশের তিন স্পিনার সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ এবং তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, কামরুল ইসলাম রাব্বিদের।

টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর দল ভারত। গত ১৮ টেস্টে অপরাজিত দলটি। বিশেষ করে কোহলির নেতৃত্বে দুর্দান্ত খেলছে দলটি। পাত্তাই দিচ্ছে না প্রতিপক্ষদের। কিছু দিন আগে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলায় মেতেছিলেন কোহলিরা। তখন নিউজিল্যান্ডে জোর লড়াই করছিল টাইগাররা। আজ দুই দল পরস্পরের বিপক্ষে নবম টেস্ট খেলতে নামছে জয়-পরাজয়ের স্বাদ নিয়ে। কিন্তু বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটের ৯৯ নম্বর ম্যাচটি নিয়ে আত্মবিশ্বাসী টাইগার অধিনায়ক মুশফিক, ‘ভারত অনেক বেশি শক্তিশালী দল। দলটির বিপক্ষে ভালো করতে পরিকল্পিত ক্রিকেট খেলতে হবে। ’ ভুল বলেননি টাইগার অধিনায়ক। কোহলি, মুরলি বিজয়, চেতেশ্বর পূজারা, আজিঙ্কা রাহানে, রবিচন্দন অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, মোহাম্মদ শামী, উমেশ যাদবদের জবাব দিতে তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মুমিনুল হক, মুশফিক, সাব্বির রহমান, সাকিব, মিরাজ, তাইজুল, তাসকিন, রাব্বিদের সেরাটা ঢেলে দিতে হবে।

ব্যাটসম্যানদের যেমন রান করতে হবে, তেমনই প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের ওপর চড়াও হতে হবে বোলারদের। বিশেষ করে হায়দরাবাদের উইকেট যেমন ‘ঘূর্ণি উইকেট’ বানানো হয়েছে, তাতে সাকিব, মিরাজ, তাইজুলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে হবে। সাকিব, তাইজুল ভারতের বিপক্ষে খেললেও এই প্রথম খেলবেন মিরাজ। সেকেন্দ্রাবাদে ভারতীয় ‘এ’ দলের বিপক্ষে ম্যাচই আগাম ইঙ্গিত দিয়েছে কাজটা কতটা কঠিন হবে। বাংলাদেশের যে চার পেসার নিয়ে যাওয়া হয়েছে, তাদের ভাণ্ডারে রয়েছে সাকুল্যে ১৩ টেস্টের অভিজ্ঞতা। শফিউল টেস্ট খেলেছেন ৯টি। কামরুল রাব্বি ৪টি, তাসকিন ২টি এবং শুভাশীষ ১টি করে। এই পেস অ্যাটাককে নিশ্চিত স্মরণকালের সবচেয়ে বড় পরীক্ষায় পড়তে হবে। তবে উইকেট যেহেতু স্পিনারদের, সেখানে অশ্বিন, জাদেজাদের বিপক্ষে লড়তে হবে তিন টাইগার স্পিনারকে।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন ও তারকাও তিনি। বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার ৪৬ টেস্টে রান করেছেন ৩,২১৩। সর্বোচ্চ ২১৯। উইকেট ১৬৫টি। ভারতের বিপক্ষে ৫ টেস্টে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের রান ১৫৬ ও উইকেট ১৩টি। মিরাজ ও তাইজুল এই প্রথম খেলবেন। মিরাজের অভিষেক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ২ টেস্ট সিরিজে ১৯ উইকেট নিয়ে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন। নিউজিল্যান্ডে ২ টেস্টে উইকেট পান ৪টি। চার টেস্টের অভিজ্ঞতা নিয়েই লড়তে হবে কোহলিদের বিপক্ষে। তাইজুলের ১১ টেস্টে উইকেট ৪৩টি। অভিজ্ঞ স্পিনার। তাকেও জোর পরীক্ষা দিতে হবে। উইকেট যে পুরোপুরি স্পিনারদের, সেটা স্পষ্ট করেছেন মুশফিক, ‘দ্বিতীয়, তৃতীয় দিন থেকে বল ঘুরতে থাকবে। ’ টাইগার অধিনায়কের কথাই স্পষ্ট, বিশ্বসেরা দলের বিপক্ষে বাংলাদেশের স্পিনারদের সেরাটাই পারফরম্যান্স করতে হবে সাফল্য পেতে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow