Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১১
ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে ধরাশায়ী রিয়াল
ক্রীড়া ডেস্ক
ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে ধরাশায়ী রিয়াল
বিমর্ষ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো

ম্যাচ শুরুর আগে রিয়াল মাদ্রিদের কোচ জিনেদিন জিদান কি জানতেন, ভ্যালেন্সিয়ার মাঠটি তার কিংবা তার দলের জন্য ‘অপয়া’। বোধহয় না।

কিংবা জানলেও দারুণ ফর্মে থাকা জিদান সে সব নিয়ে একটু চিন্তিত ছিলেন না। অথচ লা লিগা, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর রিয়াল পরশু রাতে হোচট খেয়েছে ভ্যালেন্সিয়ার অপয়া মাঠে! কেন মাঠটি অপয়া? পরশু রাতে শিরোপা প্রত্যাশী রিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়ে বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে ভ্যালেন্সিয়া। গত মৌসুমে (২০১৫-১৬) এই মাঠে ড্র করে চাকরি হারিয়েছিলেন রিয়ালের সে সময়কার কোচ রাফা বেনিতেজ। তার আগের মৌসুমে (২০১৪-১৫) এই মাঠে হেরেছিল রিয়াল। ভেঙে গিয়েছিল কার্লোস অ্যানচেলোত্তির রিয়ালের ২২ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড। গত ৬ ম্যাচে রিয়ালের এটা দ্বিতীয় হার। রিয়ালের হারে অবশ্য চির প্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার লাভ হয়েছে। ব্যবধান কমে এসেছে দুই দলের। রিয়ালের ৫২ পয়েন্টের বিপরীতে বার্সার পয়েন্ট এখন ৫১। অবশ্য রিয়াল ম্যাচ খেলেছে ২২টি এবং বার্সা একটি বেশি।

পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা রিয়ালের বিপক্ষে খেলতে নামে ধুঁকতে থাকে ভ্যালেন্সিয়া। সাফল্য পেতে এই মৌসুমেই দলটি তিন তিনবার কোচ বদল করেছে। গ্যালাকটিকোদের বিপক্ষে যখন খেলতে নামে দলটি, তখন পজিশন ছিল পয়েন্ট টেবিলের ১৫ নম্বরে। আগের ২২ ম্যাচে ৩১ গোল করা ভ্যালেন্সিয়া প্রথম ১০ মিনিটেই দুই গোল করে বিস্ময়ের জন্ম দেয়।  ম্যাচ শুরুর ৪ মিনিটে বার্সা থেকে ধারে আসা মুনির আর হাদ্দাদির ক্রসে দুর্দান্ত এক ভ্যালিতে ভ্যালেন্সিয়াকে এগিয়ে নেন সিমোনে জাজা (১-০)। ৪ মিনিট পর ৯ মিনিটে গোল সংখ্যা দ্বিগুণ করেন কাউন্টার অ্যাটাকে ভ্যালেন্সিয়া। এবার স্বাগতিকদের উচ্ছ্বাসে ভাসান চিলির স্ট্রাইকার  ওরিয়ানা (২-০)। ১০ মিনিটে দুই গোলে পিছিয়ে পড়ে কিছুটা থমকে যায় রিয়াল। তবে থেমে পড়েনি। ১৪ মিনিটে আরও একটি গোলের সুযোগও সৃষ্টি করেছিল দলটি। কিন্তু রিয়ালের গোলরক্ষকের দক্ষতায় বেঁচে যায়। প্রথম ১০ মিনিটের  জোড়া গোলে হারলেও পরে একটি গোল শোধ করে রিয়াল। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দলটির কোচ জিদান ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দেওয়ার জন্য প্রথম ১০ মিনিটের দিকে ইঙ্গিত করেছেন, ‘আমরা প্রথম ১০ মিনিটেই হেরে গেছি। জয়ের জন্য আমরা মুখিয়ে ছিলাম। কিন্তু পারিনি। ’ অবশ্য প্রথমার্ধের শেষ দিকে একটি গোল শোধ করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ব্রাজিলিয়ান মার্সেলোর ক্রসে ট্রেড মার্ক হেডে ব্যবধান কমান রিয়ালের পর্তুগিজ স্ট্রাইকার রোনালদো (১-২)। লিগে এটা তার ১৫ নম্বর গোল। প্রথমার্ধ শেষ হয় এই গোলেই।

দ্বিতীয়ার্ধে একাধিক পরিবর্তন আনেন জিদান। মাঠে নামান হামেশ রদ্রিগেজের জায়গায় গ্যারেথ বেলকে। কিন্তু তাতে কোনো লাভ হয়নি। উল্টো আক্রমণের ধার কমে যায়। যদিও ৫৪ মিনিটে পেনাল্টি পাওয়া উচিত ছিল রিয়ালের রোনালদোকে ফেলে দেওয়ায়। কিন্তু রেফারি পেনাল্টি দেননি। ৬৭ ও ৭২ মিনিটেও পেনাল্টি পেতে পারত স্বাগতিক ভ্যালেন্সিয়া। এবারও রেফারি দেননি। ফলে ম্যাচে আর গোল হয়নি। ম্যাচ হেরেই মাঠ ছাড়তে হয় জিনেদিন জিদানের রিয়াল মাদ্রিদকে। দলটির হারে বার্সা ও সেভিয়ার সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধান কমে এসেছে।

up-arrow