Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:১৬
আশা নিয়ে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
আশা নিয়ে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা
আজ শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। দ্বীপ রাষ্ট্রে যাওয়ার আগে অনুশীলনে ফুরফুরে মেজামে টাইগাররা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

বাংলাদেশ এর আগে আরও চার বার টেস্ট সিরিজ খেলেছে ‘দ্বীপরাষ্ট্র’ শ্রীলঙ্কায়। পঞ্চমবারের মতো সিরিজ খেলতে আজ দুপুরে কলম্বো যাচ্ছেন মুশফিকুর রহিমরা।

অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে এবারের সফরের আবেদন অনেক বেশি। সিরিজটি আবার সোনালি হরফে লেখা থাকবে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে। দুই টেস্ট সিরিজের ফল যাই  হোক না কেন, বিশেষ করে ১৫-১৯ মার্চ কলম্বো টেস্টটির আবেদন, মাত্রা একেবারেই ভিন্ন। ওই টেস্টটিই বাংলাদেশের ১০০ নম্বর টেস্ট। ঐতিহাসিক সফরে জয়ের স্বপ্ন দেখছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। শততম টেস্টটি নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা গভীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় আছেন, সেটা জানাতে ভুলেননি শ্রীলঙ্কা যাওয়ার আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে।  

২০০০ সালের ১০ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ। এরপর সময়ের চোরা স্রোতে ৯৮টি টেস্ট খেলে ফেলেছে টাইগাররা। সাফল্য আঙ্গুলে গোনা যায়। জিম্বাবুয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জয়ই গত ৯৮ টেস্টে বাংলাদেশের সাফল্য। অবশ্য ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ড্রয়ের রেকর্ডও রয়েছে। ২০১৩ সালে গলে তিন সেঞ্চুরিতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ড্র করেছিল। ওই টেস্টে ১৯০ রান করেছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মুশফিকুর রহিম। ১০০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন নাসির হোসেন। প্রায় ৪ বছর পর সেই গলেই সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নামছে টাইগাররা। তারিখের হিসেবে শুধু একদিন আগে-পেছনে। চার বছর আগে টেস্টটি হয়েছিল ৮ মার্চ। এবার শুরু হচ্ছে ৭ মার্চ। ওই টেস্টে তিন সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৬৩৮। টেস্টটি ড্র হয়েছিল। কলম্বোয় পরের টেস্টটি হেরে যায় টাইগাররা। গলের টেস্টটি আত্মবিশ্বাস জোগাবে কি-না প্রশ্নোত্তরে বলেন, ‘গতবার আমরা ভালো খেলেছিলাম। এবারও চেষ্টা থাকবে। তবে অতীত নিয়ে ভাবতে চাই না। ’ টাইগারদের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে ৯৯ নম্বর টেস্ট গলে এবং ১০০ নম্বর টেস্টটি কলম্বোয়। ১৫-১৯ মার্চ টেস্টটি বাংলাদেশের শততম টেস্ট। টেস্টটি নিয়ে আগ্রহ গোটা জাতির। টেস্টটি নিয়ে টাইগার অধিনায়ক বলেন, ‘এটা তো অবশ্যই রোমাঞ্চিত হওয়ার ব্যাপার। এটা একটা মাইলস্টোনও। আমরা যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট- ওয়ানডে এবং টি-২০ সিরিজ জিততে পারি, তাহলে আমাদের রেটিং পয়েন্ট বাড়বে। আর যেটা বলা হচ্ছে, ১০০তম টেস্ট। এটা শুধু আমার জন্য নয়, বাংলাদেশের জন্য এটা একটা বড় মাইলফলক, আমাদের জাতির জন্য একটা বড় উপলক্ষ। ’

২০১৭ সাল বাংলাদেশের শুরু হয়েছিল নিউজিল্যান্ড সফর দিয়ে। সফরে দুটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলেছিল। হেরেছিল সব ম্যাচেই। তবে প্রত্যাশার চেয়ে খারাপ খেলেনি টাইগাররা। সফরে সাকিব আল হাসান ২১৭ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। যা বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর। নিউজিল্যান্ডের ভিন্ন কন্ডিশনের স্বাদ নিয়ে ভারত খেলতে যান মুশফিকরা। হায়দরাবাদের ঐতিহাসিক টেস্টটি খেলেননি কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান। এবার অবশ্য শ্রীলঙ্কা সফরে ফিরেছেন মুস্তাফিজ। মুস্তাফিজসহ এবার দ্বীপরাষ্ট্রে যে ১৬ ক্রিকেটার যাচ্ছেন, তাদের পাঁচজনই পেসার। রুবেল হোসেন ছাড়া অবশ্য শুভাশিষ রায়, কামরুল ইসলাম রাব্বি, তাসকিন আহমেদ ও মুস্তাফিজের দ্বীপরাষ্ট্রে খেলার অভিজ্ঞতা নেই। অনভিজ্ঞ পেসারদের নিয়ে খেলতে গেলেও জয়ের স্বপ্ন দেখছেন টাইগার অধিনায়ক, ‘প্রতিটি সফরেই সুযোগ থাকে। তবে এবার আমাদের সুযোগ রয়েছে। শ্রীলঙ্কা দলে গত কয়েকটি সিরিজে ভালো খেলা কয়েকজন ভালো ক্রিকেটার খেলছেন না। নিয়মিত অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলি ম্যাথিউস নেই। আমাদের সুযোগ আছে বললেও এটা ভোলা যাবে না, খেলা হবে তাদের মাঠে। ’ ২০১৩ সালে সর্বশেষ যে সফর করেছিল বাংলাদেশ, সেবার গলে টেস্ট ড্র করা ছাড়াও পাল্লেকেলেতে জিতেছিল একটি ওয়ানডে। এবারও ক্রিকেটপ্রেমীরা চাইছেন আরও একটি সাফল্য মাখা সফর। যাতে শততম টেস্টটি উদযাপন করতে পারেন মনের মাধুরী মিশিয়ে।

up-arrow