Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৯
ট্রফি হাতছাড়া চট্টগ্রাম আবাহনীর
মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম
ট্রফি হাতছাড়া চট্টগ্রাম আবাহনীর
ডি বক্সের ভিতর পোচনের ডিফেন্ডার হাত দিয়ে বল ঠেকালেও চীনের রেফারি চট্টগ্রাম আবাহনীকে নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত করেন —দিদারুল আলম

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের প্রথম আসরে চট্টগ্রাম আবাহনী ফাইনালে ভারতীয় ক্লাব কিং ফিশার ইস্ট বেঙ্গলকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিল। দ্বিতীয়বারের মতো টুর্নামেন্টটি শুরু হলে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হিসেবে চট্টগ্রাম আবাহনীকে নিয়েই আশায় বুক বেধেছিল বাংলাদেশের ফুটবলভক্তরা।

অবশ্য ঢাকা আবাহনী ও মোহামেডানও ছিল এই তালিকায়। তবে সেমিফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিনিধি ছিল কেবল চট্টগ্রাম আবাহনী। ভক্তরা আশা করেছিলেন, প্রথমবারের মতো এবারও দারুণ কিছুই করে দেখাবেন মামুনুলরা। তবে গতকাল সেই সেমিফাইনালে কোরিয়ান দল পোচন সিটিজেন ফুটবল ক্লাবের কাছে রেফারির ভুলে ২-১ গোলে হেরে       যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আশাহত হয়েই দর্শকরা বাড়ি ফিরেছেন।

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল। চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে হাজারও দর্শক মেতে আছে ফুটবল নিয়ে। চট্টগ্রাম আবাহনী ১-২ গোলে পিছিয়ে পোচন সিটিজেন ক্লাবের সঙ্গে। তবে মামুনুলদের দুরন্ত ফুটবল দেখে তখনো স্বপ্নভঙ্গ হয়নি ভক্তদের। ম্যাচের ৭৩তম মিনিটে পোচনের ডিফেন্ডার পেনাল্টি বক্সের ভিতরে হ্যান্ডবল করেন। দর্শকরা উল্লাসে ফেটে পড়ে। পেনাল্টির বাঁশি বুঝি এখনই বেজে উঠবে। কিন্তু চীনের রেফারি গু চুনহান পেনাল্টির আবেদন অগ্রাহ্য করলেন। ক্ষেপে উঠলেন দর্শকরা। হাজারও দর্শক একসঙ্গে প্রতিবাদে ফেটে পড়লেন। চট্টগ্রাম আবাহনীর ফুটবলাররাও বার বার আবেদন করতে লাগলেন। কিন্তু কোনো ফল হলো না। রেফারির অবদানেই গতকাল সেমিফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনীকে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছে গেল কোরিয়ান ক্লাব পোচন সিটিজেন।

শুরুটা দারুণ করেছিল শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চট্টগ্রাম আবাহনী। ২৩তম মিনিটে জামাল ভুইয়ার দারুণ এক গোলে এগিয়ে যায় তারা। গোছানো ফুটবল খেলে দর্শকদের প্রাণ ভরিয়ে দিচ্ছিল বার বার। বল দখলের লড়াই এবং কাউন্টার আক্রমণেও এগিয়ে ছিলেন মামুনুলরা। তবে ম্যাচের ৪৩তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে পোচন সিটিজেনকে সমতায় ফেরান জ্যাং ইয়াং। প্রথমার্ধে আর কোনো গোল হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধে কাজটা বেশ কঠিন হয়ে যায় চট্টগ্রাম আবাহনীর জন্য। বিরতির পর মাঠে নেমে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই দারুণ এক গোল পেয়ে যায় কোরিয়ান ক্লাবটি। ৪৬তম মিনিটে পার্ক সিয়াংয়ের গোলে এগিয়ে যায় পোচন সিটিজেন। অবশ্য পিছিয়ে পড়ে চট্টগ্রাম আবাহনী সাঁড়াশি আক্রমণ চালায় পোচনের গোলমুখে। প্রতিবারই প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগের দেয়ালে আঘাত খেয়ে ফিরে আসে জামালদের আক্রমণ। বেশ কয়েকটা দারুণ সুযোগ অবশ্য নষ্ট করেন চট্টগ্রাম আবাহনীর ফুটবলাররা। এদিকে ম্যাচের ৮৫তম মিনিটে পেনাল্টি বক্সের ভিতরে নাসিরকে কনুই দিয়ে আঘাত করলে রেফারি পোচন সিটিজেনের কিম চানকে লাল কার্ড দেন। ১০ জনের দলে পরিণত হয় কোরিয়ান ক্লাবটা। প্রতিপক্ষের উপর হামলে পড়ে চট্টগ্রাম আবাহনী। কিন্তু সমতাসূচক গোলটা আর করতে পারেননি মামুনুলরা। ২-১ গোলের পরাজয়ে ভক্তদের হতাশ করে চট্টগ্রাম আবাহনী। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের ফাইনালে কোরিয়ান ক্লাব পোচন সিটিজেন মালদ্বীপের দল টিসি স্পোর্টস ক্লাবের মুখোমুখি হবে। ৩ মার্চ এমএ আজিজ স্টেডিয়ামেই এই ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম সেমিফাইনালে টিসি স্পোর্টস ক্লাব নেপালের মানাংকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow