Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ৫ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ মার্চ, ২০১৭ ২৩:২০
প্রস্তুতি ম্যাচে সন্তুষ্ট হাতুরাসিংহে
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রস্তুতি ম্যাচে সন্তুষ্ট হাতুরাসিংহে

ভারত মহাসাগরের তীর ঘেঁষে দাঁড়িয়ে গল ফোর্ট বা গল দুর্গ। চারশ বছর আগে তৈরি দুর্গটি আগলে রেখেছে গল ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামটিকে।

স্টেডিয়ামটি আবার শ্রীলঙ্কার পয়মন্ত ভেন্যু। এখানে দলটির হার মাত্র ৬টি। ড্রও ৬। জয় ১৬টি। এমন একটি ভেন্যুতেই ৭ মার্চ সিরিজের প্রথম টেস্ট খেলতে নামছে বাংলাদেশ। গলে নামার আগে অবশ্য ‘দ্বীপরাষ্ট্র’ শ্রীলঙ্কার কনডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে দুই দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছেন চন্ডিকা হাতুরাসিংহের শিষ্যরা। মরুতোয়ার প্রস্তুতি ম্যাচের ফল যথারীতি ড্র। শ্রীলঙ্কা প্রেসিডেন্ট একাদশের বিপক্ষে ম্যাচের ফল যাই হউক না কেন, শিষ্যদের ব্যাটিং ও ফিল্ডিং নিয়ে সন্তুষ্টি কোচের কণ্ঠে। অবশ্য বোলিং নিয়ে তেমন কিছু বলেননি হাতুরাসিংহে। অবশ্য বলার মতো উপলক্ষও ছিল না কোচের। টেস্ট ক্রিকেটার দিনেশ চন্ডিমল ১৯০ অপরাজিত ইনিংস খেলে টাইগার বোলারদের রীতিমতো কঠিন পরীক্ষা নিয়েছেন।

প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন ব্যাটিং করে টাইগাররা। ৯০ ওভারে ব্যাটিং করে ৭ উইকেটে ৩৯১ রান করে মুশফিক বাহিনী। ম্যাচে টাইগার অধিনায়ক খেলেছেন একজন স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে। ম্যাচে ওপরের সারির দুই ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও মুমিনুল হক লম্বা ইনিংস খেলেছেন। স্বেচ্ছা অবসরে যাওয়ার আগে তামিম ১৩৬ রানের ইনিংস খেলেন। নিউজিল্যান্ড ও ভারত সিরিজে রানে ফিরতে কঠিন পরীক্ষায় ছিলেন মমিনুল। গল টেস্টে নামার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে মুমিনুলের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে ৭৩ রানের ইনিংস। মুশফিক ২১, সাকিব আল হাসান ৩০, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৪৫ রানের ইনিংস খেলে নিজেদের মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন। টেস্টে কিপার হিসেবে খেলার সুযোগ পাওয়া লিটন দাসের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে ৫৭ রানের অপরাজিত ইনিংস। তবে ব্যর্থ হয়েছেন সৌম্য সরকার। সব মিলিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে শিষ্যদের ব্যাটিংয়ের প্রশংসাই করেছেন হাতুরাসিংহে, ‘তামিম ভালো ব্যাটিং করেছেন। ভালো ব্যাটিং করেছেন মুমিনুল ও লিটন। মুশফিক, সাকিব, মাহমুদুল্লাহ লম্বা ব্যাটিংয়ের সুযোগ হাতছাড়া করেছে। তারপরও আমার মনে হয় এই ব্যাটিং তাদের কাজে লাগবে। ’

ঘরের মাঠে আফগানিস্তান, ইংল্যান্ড এবং ঘরের বাইরে নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের ফিল্ডিং নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়েছে। সহজ সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেছে। যার খেসারত গুনেছে ম্যাচ হেরে। আবার সহজ সহজ স্ট্যাম্পিং মিস করে এখন মুশফিককে খেলতে হচ্ছে একজন স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে। বাজে ফিল্ডিংয়ের জন্য বিসিবি শরণাপন্ন হতে যাচ্ছে সর্বকালের সেরা ফিল্ডার জন্টি রোডসের। তবে মরুতোয়ার প্রস্তুতি ম্যাচে তেমন কোনো সমস্যা চোখে পড়েনি ফিল্ডারদের। ক্যাচও মিস করেননি কেউ। স্ট্যাম্পিংও মিস করেননি লিটন। তার ওপর ফিরতি ক্যাচ নিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। ফিল্ডিং নিয়ে কোচ বলেন, ‘ফিল্ডিংয়ে উন্নতির ছাপ চোখে পড়েছে। ’ ব্যাটিং ও ফিল্ডিং নিয়ে সন্তুষ্ট কোচ।

কিন্তু বোলিং নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। যদিও দলের দুই স্ট্রাইক বোলার তাসকিন আহমেদ ও মুস্তাফিজ সফল ছিলেন। তাসকিন ৩টি ও মুস্তাফিজ ২টি উইকেট নেন। স্পিনারদের মধ্যে একটি মাত্র উইকেট নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ব্যর্থ ছিলেন সাকিব ও তাইজুল ইসলাম।

প্রস্তুতি ম্যাচের আত্মবিশ্বাস নিয়েই গলে ৭ মার্চ টেস্ট খেলতে নামবে টাইগাররা। চার বছর আগে এই গলেই টাইগারদের রয়েছে মধুর স্মৃতি। মুশফিকের ২০০ রান, মোহাম্মদ আশরাফুলের ১৯০ ও নাসির হোসেনের ১০০ রানে ভর করে টেস্ট ড্র করেছিল বাংলাদেশ। চার বছর পুনরায় টেস্টে নামার আগে সুখকর স্মৃতিটি আত্মবিশ্বাস যোগাবে কোনো সন্দেহ নেই।

up-arrow