Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ মে, ২০১৮ ২৩:২৩

মালেতে গোল বন্যায় ভাসল আবাহনী

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মালেতে গোল বন্যায় ভাসল আবাহনী

ঢাকায়  হোম ম্যাচে ভারতের আইজলের বিপক্ষে ড্র করায় এএফসি কাপে ঢাকা আবাহনীর পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে যায়। এ অবস্থায় গতকাল মালেতে মালদ্বীপ চ্যাম্পিয়ন নিউ রেডিয়ান্টের বিপক্ষে মুখোমুখি হয়েছিল। ঢাকায় প্রথম সাক্ষাতে নিউ রেডিয়ান্ট জিতে যায়। ঢাকা ছাড়ার আগে কোচ সাইফুল বারী টিটু বলেছেন, মালদ্বীপের মাটিতে রেডিয়ান্টকে হারানো খুবই কঠিন। তবু আমরা জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামব। ড্র হলেও খুশি হবো।

অর্থাৎ মালেতে জেতাটা যে সম্ভব নয়, তা ধরেই আবাহনী ঢাকা ছেড়েছিল। ৫-১ গোলের বড় ব্যাবধানে হেরে আবাহনী দেশে ফিরছে। ফুটবলে কি আমূল পরিবর্তন। ৯০ দশকেও জাতীয় বা ক্লাব পর্যায় লড়াইয়ে মাঠে দাঁড়াতেই পারত না মালদ্বীপ। গোলের বন্যায় ভেসে যেত। আবাহনী বা মোহামেডানের ৭ বা ৮ গোলে জয়টা ছিল স্বাভাবিক ঘটনা। ১৯৮৯ সালে এশিয়ান ক্লাব কাপ বাছাই পর্ব লড়াইয়ে ম্যাচের আগেই রেডিয়ান্ট কর্মকর্তারা মোহামেডানের কাছে অনুরোধ রাখেন যেন কম গোল দেওয়া হয়। সেই ম্যাচে দুটি হ্যাটট্রিকসহ মোহামেডান ৮-০ গোলে জিতেছিল।

কালের বিবর্তনে মালদ্বীপের বড় কোনো ট্রফি জেতার কৃতিত্ব না থাকলেও তাদের জাতীয় দল বাংলাদেশকে পাত্তাই দিচ্ছে না। গত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বড় ব্যবধানে হারেন মামুনুলরা। শেষ প্রীতিম্যাচেও গোল উৎসবে মেতেছিল মালদ্বীপ। ক্লাব পর্যায়ে লড়াইয়েও পেরে উঠতে পারছে না। সুতরাং তাদের মাটিতে জয় পাওয়াটা সত্যিই অবিশ্বাস্য। রেডিয়ান্ট যেমন মালদ্বীপের সেরা দল। তেমনি আবাহনীও বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন। কিন্তু যেখানে পার্থক্য গড়ে উঠেছে সেখানে আবাহনী না গোলের বন্যায় ভেসে যায় সেই শঙ্কাও জেগে উঠেছিল, হয়েছেও তাই। অ্যাওয়ে ম্যাচে শুরু থেকে প্রাধান্য বিস্তার করে আবাহনীকে দিশাহারা করে রাখে রেডিয়ান্টরা। বিজয়ী দলের আলি ফাসির ৩ গোল দিয়ে হ্যাটট্রিক করেন। আলি আশরাফ করেন ২ গোল। আবাহনীর পক্ষে সান্ত্বনাসূচক গোলটি করেন জাপানি ফুটবলার কোজিমা।


আপনার মন্তব্য