Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ২৩:২০
জাতীয় নয়, আসছে ভারতের যুব দল
ক্রীড়া প্রতিবেদক
bd-pratidin

ক্রিকেট ও হকিতে বাংলাদেশের চেয়ে ভারত এগিয়ে এ নিয়ে কারও দ্বিমত নেই। কিন্তু ফুটবলে কী বলা যাবে। মান বিচার করলে খুব একটা পার্থক্য খুঁজে পাওয়া যাবে না। অথচ সাফল্যের দিক দিয়ে ভারত এগিয়ে গেছে অনেক দূর। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে তা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ভারতের অবস্থান শুধু ৯৬ হলেও বাংলাদেশের ১৯৬তম। অর্থাৎ ১০০ ধাপ পিছিয়ে আছে। দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত সাফ ফুটবলে ১১ আসরের মধ্যে ভারত সাতবার চ্যাম্পিয়ন। সেখানে কিনা বাংলাদেশ একবার। বাকিদের মধ্যে মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তান একবার করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

২০০৩ সালে চ্যাম্পিয়নের পর বাংলাদেশ আর ট্রফি জিততে পারেনি। সেখানে কিনা জেতা ভারতের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। তাই তো তারা অনেকটাই রিলাক্স। ৪ সেপ্টেম্বর ঢাকায় পর্দা উঠবে ১২তম সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের। এখানে প্রতিটি দেশ তাদের জাতীয় দলই মাঠে নামাবে। ভারতই কিনা ব্যতিক্রম। কয়েক মাস আগেই ভারতের মিডিয়ায় খবর বেরিয়েছিল— শিরোপা নয়, ভারতের লক্ষ্য সাফে তাদের যুবাদের ঝালাই করে নেওয়া। ফুটবল উন্নয়নে ভারত যে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছে তারই একটা পরীক্ষা। অবশ্য যুবাদের পাঠিয়ে ভারত শিরোপা হাতছাড়া করতে চাইবে কিনা সেটাও বড় প্রশ্ন ছিল।

না কোনো সংশয় নয়। ঢাকায় অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ভারত অনূর্ধ্ব-১৮ ও ২৩ বছর বয়সী ছেলেদের প্রাধান্য দিয়েই দল পাঠাচ্ছে। গ্রুপে তাদের লড়তে হবে শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের বিপক্ষে। যুব হলেও এই দল নিয়ে আশাবাদী ভারত। বাংলাদেশ যেখানে ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে নজরকাড়া প্রস্তুতি নিয়েছে, সেখানে ভারত টুর্নামেন্টকে হালকা করে দেখছে। তা না হলে জাতীয় দলের পরিবর্তে যুবাদের বেছে নিল কেন? এই যুবাদের পেছনে ফেলে বাংলাদেশ ১৫ বছর পর হারানো গৌরব কি ফিরে পাবে?

এই পাতার আরো খবর
up-arrow